লগইন রেজিস্ট্রেশন

♦♦♦ ইসলাম কি দিয়েছে নারীকে (পর্ব- ১) ♦♦♦

লিখেছেন: ' আবদুস সবুর' @ রবিবার, মার্চ ৯, ২০১৪ (৭:০৩ অপরাহ্ণ)

►কন্যা সন্তানের জন্মকে বলা হল ‘সুসংবাদ’

وَإِذَا بُشِّرَ أَحَدُهُمْ بِالْأُنْثَى ظَلَّ وَجْهُهُ مُسْوَدًّا وَهُوَ كَظِيمٌ l يَتَوَارَى مِنَ الْقَوْمِ مِنْ سُوءِ مَا بُشِّرَ بِهِ أَيُمْسِكُهُ عَلَى هُونٍ أَمْ يَدُسُّهُ فِي التُّرَابِ أَلَا سَاءَ مَا يَحْكُمُونَ
তাদের কাউকে যখন কন্যা সন্তানের ‘সুসংবাদ’ দেয়া হয় তখন তার চেহারা মলিন হয়ে যায় এবং সে অসহনীয়
মনস্তাপে ক্লিষ্ট হয়। সে এ সুসংবাদকে খারাপ মনে করে নিজ সম্প্রদায় থেকে লুকিয়ে বেড়ায় (এবং চিন্তা করে ) হীনতা স্বীকার করে তাকে নিজের কাছে রেখে দেবে,নাকি মাটিতে পুঁতে ফেলবে। .....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

জামিয়াতুল আসাদের তারাবীহ সংক্রান্ত পোষ্টের পোস্টমর্টেম

লিখেছেন: ' ABU TASNEEM' @ রবিবার, জুলাই ২০, ২০১৪ (৬:৪৫ পূর্বাহ্ণ)

Tarabih-1

সমস্ত প্রশংসা ঐ মহান সত্তার জন্য যিনি আমাদের সৃষ্টি করেছেন এবং যার হাতে আমাদের প্রাণ। অসংখ্য দুরুদ ও সালাম বর্ষিত হোক সর্বশেষ ও চূড়ান্ত নাবী মুহাম্মাদ সা: এর উপর।

অতঃপর আমরা জানি যে, আয়াতুল কুরসীর ফজিলত বর্ণনাকারী হচ্ছে শয়তান। সেই শয়তান থেকে যদি আমরা ভালো কিছু পেতে পারি তবে মাযহাবীদের থেকে কেন পাব না। তবে শর্ত হচ্ছে, শয়তানের কথা যেমন যাচাই করা প্রয়োজন, ঠিক একইভাবে মাযহাবীদের কথাও যাচাই করা প্রয়োজন।

“তারাবীর সলাত বিশ রাকআত নাকি আট রাকআত” এ বিষয়টা নিয়ে আমি/আমরা খোজ .....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

সুন্দর একটি ইসলামিক ওয়েব সাইট

লিখেছেন: ' দেশী৪৩২' @ বুধবার, জুলাই ২, ২০১৪ (২:০২ পূর্বাহ্ণ)

সুন্দর একটি ইসলামিক ওয়েব সাইট।
http://www.amarislam.com/

! রিপোর্ট করুন ! .....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

হানাফী ফতোয়া : সূর্যাস্তের সাথে সাথে ইফতার শুরু না করা মাকরুহ

লিখেছেন: ' Talebul Elm' @ রবিবার, জুন ২৯, ২০১৪ (৬:৫৪ পূর্বাহ্ণ)

MFT Shafi

সালাফী বা আহলে হাদীসদের পক্ষ থেকে হানাফীদের প্রতি একটি অভিযোগ হল, তারা সূর্যাস্তের সাথে সাথে ইফতার করে না। অথচ হানাফী মুফতি শফী (রহ) লিখেছেন : (স্ক্রীন শট)

“ইফতারি : সূর্যাস্ত নিশ্চিত হওয়ার পর ইফতারিতে দেরী করাটা মাকরুহ। অবশ্য যখন মেঘ বা অন্যান্য কারণে সন্দেহ হয়, তখন দুই-চার মিনিটি অপেক্ষা করাটা ভাল। তবে সাবধানতার জন্য তিন মিনিট সবসময় অপেক্ষা করা উচিত।” [জাওয়াহিরুল ফিক্বহ ৩/৫২২ পৃ:]

অপর একজন হানাফী মুফতী মুহাম্মাদ কিফায়াতুল্লাহ দেহলভী (রহ) লিখেছেন :
غروب آفتاب کے بعد وقت افطار شروع .....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

কুরআনে ইফতারের ওয়াক্ত বা সময়

লিখেছেন: ' Talebul Elm' @ শনিবার, জুন ২১, ২০১৪ (৩:২৬ অপরাহ্ণ)

[হাদীস অস্বীকারকারী ও শিয়া সম্প্রদায় যতগুলো ব্যাপারে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করছে তার মধ্যে ইফতারের ওয়াক্ত অন্যতম। নিচে এ সম্পর্কে আলোকপাত করা হলো। হাদীসে সূর্যাস্ত হওয়ার মুহূর্ত থেকেই রাতের আগমন ও ইফতারের শুরুর সময় ঘোষণা করা হয়েছে। যেহেতু তারা হাদীস থেকে দলিল নিতে চায় না, এ কারণে আমরাও হাদীস উপস্থাপন করা থেকে দূরে থাকছি। অথচ প্রমাণিত হবে, হাদীসের দাবীকেই কুরআনের আয়াত সমর্থন করছে। অবশ্য আলোচনার শেষে মাত্র একটি হাদীস উপস্থাপনার মাধ্যমে আয়াতগুলোর দাবীর সাথে কিভাবে হাদীস পরিপূরক হল, সেটা উপস্থাপন করেছি।]

আল্লাহ তা‌‌‘আলা .....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

’মুসলিম’ বনাম ‘আহলে হাদীস’

লিখেছেন: ' Talebul Elm' @ সোমবার, জুন ১৬, ২০১৪ (১০:১৩ পূর্বাহ্ণ)

Bhrantir Berajale Ekamate Din

[পিস টিভির বক্তা ও বাংলাদেশ আহলেহাদীস যুব সংঘের সভাপতি মুযাফফর বিন মুহসিন লিখিত ‘ভ্রান্তির বেড়াজালে ইক্বামতে দ্বীন’ (প্রকাশক : আহলেহাদীছ যুবসংঘ, রাজশাহী, মার্চ’২০১৪) বইটিতে ‘মুসলিম’ নামে পরিচয় দেয়াকে ‘নতুন আবিষ্কার’, ‘মুসলিম তত্ত্ব’ প্রভৃতি হিসেবে চিহ্নিত করে অবজ্ঞা ও নিন্দা করা হয়েছে (পৃ: ২৩০-৩৪)। তিনি ‘মুসলিম’ শব্দটির ব্যবহারের প্রতি যে, মনোভাব ব্যক্ত করেছেন, তার প্রতিবাদেই আমাদের এই উপস্থাপনা। উল্লেখ্য আমাদের কাছে ‘আহলেহাদীস’ নামটি মুসলিমদের মধ্যে ‘সুন্নাতপন্থী আলেম ও গবেষকদের জন্য প্রযোজ্য’। এ কারণে এই পরিচয়টি নিয়ে এখানে কোন বিতর্ক করা হবে .....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

ইসলামীরাষ্ট্রে অমুসলিমদের মর্যাদা এবং নিরাপত্তাব্যবস্থা !!

লিখেছেন: ' জুলকারনাইন সাবাহ' @ শনিবার, জুন ১৪, ২০১৪ (৬:৩১ পূর্বাহ্ণ)

ইসলামীরাষ্ট্রে অমুসলিমদের অবস্থান কী হবে কিংবা তাদের ধর্ম-কর্ম পালন করতে দেয়া হবে কিনা, এমন নেগেটিভ প্রচারণা ও ধ্যানধারণা ইদানিং উদ্দেশ্যমূলকভাবেই কিছু স্বার্থান্বেষী চালিয়ে থাকে। তাদের উদ্দেশ্য হচ্ছে- অমুসলিমদের মাঝে ইসলামী রাষ্ট্রুসম্পর্কে ভীতি সৃষ্টি করে ইসলামী আন্দোলনের বিরুদ্ধে তাদের ক্ষেপিয়ে তোলা।

বিশেষত তাদের মুল টার্গেট হচ্ছে-ইসলামী আন্দোলন। তাদের মনে রাখা উচিৎ যাদের আদর্শই হলো ইসলাম, যদি তাদের দ্বারা আল্লাহ কখনো ইসলাম কায়েমের সুযোগ এদেশে দেয়, তবে তারা তা-ই করবে যা করেছেন নবী সাঃ এবং খোলাফায়ে রাশেদাসহ তার সাহাবীরা রাঃ।

যদিও নবী .....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

আমাদের মুসলমানিত্ব এবং কামড়া-কামড়ির রকমফের-১

লিখেছেন: ' শাহ আলম বাদশা' @ শনিবার, জুন ১৪, ২০১৪ (৬:৩১ পূর্বাহ্ণ)


এই লেখার শিরোনামটা যুক্তিযুক্ত হইলো কিনা জানিনা, তবে আমার মতোন নাদান লোকের পক্ষে ইহার চাহিতে ভালো শিরোনাম রচনা করা সম্ভবপর হইলোনা বলিয়া আমি আপনাদের নিকট করজোরে ক্ষমাপ্রার্থনা করিতেছি। পাঠক, ইহাতে কাহারো গাত্রদাহ শুরু হইয়া থাকিলে আমার করিবার কিছুই নাই বলিয়া আমি দুঃখিত!

অবশ্য আমি সবাইকে এইমর্মে আশ্বাস দিতে চাহি যে, আমি কোনো বেকুব নাস্তিক নহি কিংবা ধর্মবিরোধী বা ধর্মনিরপক্ষও নহি। আমি ফতোয়াবাজ বা গালিবাজও নহি যে, ধর্মের বিষয়ে যোগ্যতা না থাকিলেও ফতোয়া দিয়া বসিবো বা মুসলিমদের গালিগালাজ করিতে বসিবো।
.....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

বই পরিচিতি : রসূলদের মাঝে অধিক মর্যাদাবান যিনি (স)

লিখেছেন: ' Talebul Elm' @ শনিবার, জুন ১৪, ২০১৪ (৬:৩০ পূর্বাহ্ণ)

নবীদের মাঝে অধিক মর্যাদাবান যিনি (স)



বইটির সংক্ষিপ্ত পরিচিতি নিম্নরূপ :
নাম : ‘রসূলদের মাঝে অধিক মর্যাদাবান যিনি (স)’
লেখক : কামাল আহমাদ
প্রকাশক : আব্দুল্লাহ সিনান বিন আব্দুর রহমান
যোগাযোগ : ০১৬৮৫-৮২৬২৬৩
.....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

চেতনার যাতনা : আমেরিকার ইসলাম বিদ্বেষের কারন

লিখেছেন: ' atiqr88' @ শনিবার, জুন ১৪, ২০১৪ (৬:২৩ পূর্বাহ্ণ)

বর্তমান বিশ্বের একমাত্র পরাশক্তি আমেরিকার অভ্যুদয় দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের মধ্য দিয়ে। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় এ দেশটি প্রথম পরমানু শক্তিধর রাষ্ট্র হিসাবে আত্বপ্রকাশ করে এবং জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী সদস্যপদ লাভ করে। ঠান্ডা যুদ্ধের (COLD WAR) শেষ ভাগে এবং সোভিয়ত ইউনিয়নের পতনের পর আমেরিকা বিশ্বের মহাশক্তিধর রাষ্ট্রে পরিনত হয়। বিশ্বের মোট সামরিক ব্যায়ের দুই পঞ্চামংশ ব্যায় ক্রের এই দেশ। বর্তমানে আমেরিকা বিশ্ব শাষন করছে এবং গোটা বিশ্বের অর্থনীতি,রাজনীতি,ও সাংস্কৃতি নিয়ন্ত্রনের কেন্দ্র বিন্দুতে রয়েছে।

আমেরিকা কোন পুরান সভ্যতা নয়। ১৪৯২ খ্রিষ্টাব্দে ক্রিষ্টেফার কলম্বাস আমেরিকা .....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

বিয়ে ও এক বরের কথা

লিখেছেন: ' atiqr88' @ শনিবার, জুন ১৪, ২০১৪ (৬:২৩ পূর্বাহ্ণ)

বিদেশ বিভূঁইয়ে উচ্চশিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে এসেছেন মিঃ সালমান। তার বাবা একজন বিশিষ্ট ইসলামি নেতা। ক্ষমতার মোহহীন এবং অর্থের প্রতি আগ্রহহীন একজন শ্রদ্ধেয় নেতা তিনি। দল থেকে নির্বাচন করার অনুরোধ স্বত্বেও তিনি নির্বাচনে দাঁড়ান নি। সমাজে দ্বীনের জন্য অবদান রাখাই তার একমাত্র উদ্দেশ্য তাই ক্ষমতার রাজনীতিতে অন্তর্ভুক্ত হয়ে সে অবদানে ভাটা আনতে চাননি তিনি। এমন একটি পরিবারের সন্তান সালমান। আজকে যখন সালমান বিয়ের পিড়িতে বসছেন তখন তার বয়স ৩১ ছুঁই ছুঁই করছে।

প্রথম সারির একজন ইসলামি নেতার সন্তানের বিয়ে, তাই এই .....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>