লগইন রেজিস্ট্রেশন

মাহমুদ ভাই এর “আমরা যেন এক কূপ হইতে বের হইয়া আরেক কূপে গিয়া না পড়ি -১ ” পোষ্ট প্রসংগে

লিখেছেন: ' আবু আয়শা' @ মঙ্গলবার, এপ্রিল ২০, ২০১০ (৪:৫৮ অপরাহ্ণ)

আস্সালামু আলাইকুম,
মন্তব্য বড় হয়ে যাওয়াতে আলাদা করে পোষ্ট করলাম।

আল্লাহ আমার ও আপনাদের সকলকে হেদায়াত দান করুন। এ পর্যন্ত মনপবন, মেরিনার, মুসলিম৫৫ অনেকবার বলেছেন যে শুদ্ধ পথ হল কোন একজন আলেম কে অনুসরন না করে সব আলেম কেই অনুসরন করা যারা কোরআন হাদিস এর দলীলের ভিত্তি তে কথা বলতে পারেন। আপনাদের অবগতির জন্য বলি; আমি সেদিন জানতে পারলাম যাকাতের ব্যাপারে ঈমাম আবু হানীফার মতামত টিই সবচেয়ে ঠিক। আমি ত খুশী হয়েই মেনে নিলাম। এই যে এই সিদ্ধান্ত টা, এটাকি আমি নিজের নফসের উপর ভিত্তি করে নিয়েছি।না, মোটেও না ইনশা আল্লাহ। বরং আলেমদের মতেই এটা জানলাম। তেমনি আপনারা উপরে যে গল্পটি দিলেন সেটার অর্থ হল (যদি ভুল বুঝি তবে ঠিক করে দিবেন) একসাথে তিন তালাক দিলে সেটা অফেরতযোগ্য তালাক হবে। এই বই কিসের ভিত্তি তে কোথা থেকে এই কথা লিখেছে জানা আছে বলে মনে হয়না। একটু খুজলেই পাবেন যে একসাথে (একই মূহুর্তে) তিন তালাক দিলে সেটা একটাই বিবেচিত হবে।এমন কি চার মাযহাবের ঈমাম সহ অনেক আলেম পাবেন যারা এটাই কোরান সুন্নাহ অনুযায়ী বুঝেছেন। হযরত ওমর শাসনমুলক ভাবে একসাথে (একই মূহুর্তে) তিন তালাক কে তালাক বিবেচনা করেছিলেন যা পরে রহিত করেছেন সহযাত কারণে।যাক সেই কথা।সবচেয়ে গুরত্বপূর্ণ বিষয় হল কেউ এই ব্লগে আহলে হাদীস হওয়ার দাওয়াত দিচ্ছে বলে আমি জানিনা।কোন ঈমাম কে ছোট করার তো প্রশ্নই আসেনা। সেটা হলে আমি ঈমাম তাহাবী, যিনি কিনা একজন হানাফি আলেম, তার লিখা আকীদার ১০৫ খানা পয়েন্ট দিয়ে দ্বীন শিক্ষা করতাম না বা যাকাতের ব্যাপারে ঈমাম আবু হানীফার মতামত টিই সবচেয়ে ঠিক এই কথা শুনে মানতাম না। ইসলাম এমন একটা দ্বীন যেটা কেয়ামত পর্যন্ত preserved থাকবে। সেটা কিভাবে হবে তা কি আমরা একবার ও ভেবেছি? অবশ্যই সেটা আলেমদের কাছে সুরক্ষিত কোরান সুন্নাহ এর জ্ঞানের মাদ্ধ্যমে।আমরা কি ভাবি যে পৃথীবির বুকে কেবল ৪ জন আলেম এসেছেন এবং এদের পর যতই আলেম এসেছেন তাদের সবার উপর এটা বাদ্ধ্যতামুলক হয়ে গেছে যে তারা উক্ত চারজনের যেকোন একজনের অনুসরন করবেন। এমন কোন আলেম কি থাকবেনা যিনি কোরান সুন্নাহ এর আলোকে বলবেন যে কোন একটি ব্যাপারে ঈমাম মালিক (র:) ঈমাম শাফেঈ (র)এর চেয়ে ঠিক বলেছেন। একটা ঘটনা শুনেছিলাম। এক শাফেঈ মাযহাবের লোক হজ্জে গিয়ে বলছে, ভাই আমি এখানে এসে হানাফী হয়ে গেছি।কারন শাফেঈ মাযহাএব বিপরীত লিেন্গর কারো স্পর্শ লাগলে ওযু ভেংগে যায়। হজ্জে গিয়ে এই নিয়ম ত মানা সম্ভব নয়। এই লোক কি তাহলে ভুল করল। না।অবশ্যই না। কারন ঈমাম শাফেঈ (র) কাছে ওই বিষয়ক হাদীস টি হয়ত পৌছায়নাই, অথচ হানাফি আলেমরা হয়ত এই হাদীস টা পেয়েছেন। আমরা কি বলব এই রকম কোন মাসালা কোন মাযহাবে ঠিক আছে তা বলার জন্য কোন আলেম পৃথীবি তে নাই? আরো একটা উদাহারন দেই। মেয়েদের নিকাব কোন মাযহাবে বাদ্ধতামুলক কোন মাযহাবে নয়। বেশীর ভাগ আলেম বলেছেন সবসময় এটা বাদ্ধতামুলক নয়। এখন কোনো মেয়ে কি তার মাযহাবে এটা বাদ্ধতামুলক বিধায় কোন আলেমের রায় নিয়ে এটা বাদ্ধতামুলক না ভাবতে পারেনা। আমি দ্বীনের জ্ঞানে একেবারেই হত দরিদ্র। আল্লাহ আমাকে মাফ করুন যদি ভুল বলে থাকি। অবুঝের মত আপনারা বলছেন অন্যরা অন্ধ অনুসরন করছে। আপনারা কি যাদের ব্যাপারে এই কথা বলছেন তাদের সাথে কথা বলে এটা নিশ্চিত করেছেন? নয়ত কি আমরা অপবাদের দোষে দোষী হবনা?
No qattat (Slanderer) will enter paradise.
-Narrated from Bukhadi
আমরা কি ভাবি যে এই পৃথীবিতে এই উপমহাদেশ ছাড়া আর কোথাও কোন আলেম নাই? তাহলে কাদের দাওয়াতে ইউসুফ এসটেস,আব্দুর রহমান গ্রীন, বিলাল ফিলিপস,জামাল আল দ্বীন আল যারাবোযার মত লোক ইসলাম ধর্ম গ্রহন করে এখন ইসলাম প্রচার করছেন আর জ্ঞানের দিক থেকেও এগিয়ে গেছেন আমাদের চেয়ে হাযার যোজন। নিজেদের সীমাবদ্ধ করে কোরান সুন্নাহ এর বিশাল জ্ঞানের ভান্ডারে আমরা নিজেদের জন্য কি জোগাড় করেছি? হানাফী মুসলিম দাবি করে আমরা সারা জীবনেও হয়ত ঈমাম তাহাবীর আক্বীদার ১০৫ পয়েন্ট ব্যাপার টা জানার বাইরে রেখেই মরে যাই। অথচ হানাফী না হয়েও পুরো পৃথীবির অনেকেই এটা নিয়ে পড়ছেন আর উপকৃত হচ্ছেন। এমন আরো অনেক জ্ঞান অজানা থেকে যায় আমাদের অহন্কারের জন্য। আর আমরা পরিতৃপ্তির ঢেকুর তুলি অল্প জেনেই। যাদের কে আহলে হাদীস ভাবছেন তারা কি কখনো বলেছে যে সবাই কে আহলে হাদীস হতে হবে? তারা বলছে আমাদের শুদ্ধ জ্ঞানের জন্য আলেমদের কাছে যেতে। একটু চলুন না শাইখ বিলাল ফিলিপসের www.islamiconlineuniversity.com এ। গিয়ে দেখি তারা কিভাবে দ্বীন শিখাচ্ছেন। ওখানে যাও্য়া মানেই ত পরাজয় নয়। বরং কোরান সুন্নাহ এর আলোকে একটু বেশি জানলে কি আমাদের উপকার হবেনা ইনশা আল্লাহ? সারাক্ষন ব্লগে লিখার সময় হয়, ওখানে যেতে ক্ষতি কি?ইন্টারনেট তো আছেই। দেশে চানত ড: মনযুর ই ইলাহি, মো: ইব্রাহীম সাহেবদের কাছে যান। উনাদের কাছে ইসলামিক টিভির লেকচার শুনে আমি কি ভড়কে যাই নি? পরে সত্য জেনে তা কি মেনে নেইনি? যা মানছেন তা না ফেলুন,তারপর ও শিখুন- আল্লাহ হয়ত সঠিক পথ টি দেখিয়ে দিবেন । আমরা মুসলিম হতে চাই, সে রকম মুসলিম যাদের কে দেখে কাফির রা ভয় পাবে, ভয় পাবে আমাদের ঈমানের জোড় দেখে আর আক্বীদার ব্যাপারে ঐক্য দেখে। এই ভাবেই কি পূর্বে আল্লাহ আমাদের ক্ষমতা দেননাই। তাই আসুন, ইলম, আমল ও দাওয়াত নিয়ে সামনে আগাই।অবশ্যই সে দাওয়াত হবে আল্লাহ এর পথের দিকে। কোনো দলের দিকে নয়। আমরা সব ঈমাম এবং আলেমদের (কোরান সুন্নাহ এর আলোকে যারা কথা বলেছেন, বলছেন এবং বলবেন) শ্রদ্ধা করব কিন্তু কখনও হানাফি,মালিকি,শাফী,হামবলী, আহলে হাদীস বলে নিজেদের অন্য মুসলিম ভাই থেকে আলাদা করবনা।

And who is better in speech than he who invites to Allah, and does righteous deeds, and says: “I am one of the Muslims.” (koran:Sura 41: Ayat 33)

ফি আমানিল্লাহ

Processing your request, Please wait....
  • Print this article!
  • Digg
  • Sphinn
  • del.icio.us
  • Facebook
  • Mixx
  • Google Bookmarks
  • LinkaGoGo
  • MSN Reporter
  • Twitter
২৬০ বার পঠিত
1 Star2 Stars3 Stars4 Stars5 Stars (ভোট, গড়: ৪.০০)

২৫ টি মন্তব্য

  1. “একটু খুজলেই পাবেন যে একসাথে (একই মূহুর্তে) তিন তালাক দিলে সেটা একটাই বিবেচিত হবে।এমন কি চার মাযহাবের ঈমাম সহ অনেক আলেম পাবেন যারা এটাই কোরান সুন্নাহ অনুযায়ী বুঝেছেন। হযরত ওমর শাসনমুলক ভাবে একসাথে (একই মূহুর্তে) তিন তালাক কে তালাক বিবেচনা করেছিলেন যা পরে রহিত করেছেন সহযাত কারণে।”

    - আপনার এই অংশের সহিত একমত হতে পারলামনা, দুঃখিত। চার মাযহাবের ঈমামগন একসাথে (একই মূহুর্তে) তিন তালাক কে এক তালাক বলেছেন প্রমান করতে পারবেন?

    অন্যান্য বিষয়ে পরে আসছি…

    Abu Aaisha

    @মাহমুদ,
    আলেমদের মতামত এই মূহুর্তে কাছে নেই। শিঘ্রই দেওয়ার চেষ্টা করব ইনশা আল্লাহ। কিন্তু নিচের হাদীস থেকে এটা ইনশা আল্লাহ স্পষ্ট যে আবু বকর (রা:) এবং ওমর (রা:) তাই বুঝেছিলেন। সহীহ মুসলিম মানতে না চাইলে অবশ্য ভিন্ন কথা। আপনার কাছে ঈমাম মালেক (র:) এর জীবনী থাকলে একটু খুজে দেখবেন। তিনি এই মত পোষন করার জন্য বেশ অত্যাচার ও সয়েছেন। আমি রেফারেন্স পেলে জানাব ইনশা আল্লাহ।
    ঈমাম মুসলিম (র:) হতে বর্ণিত:

    Chapter 2 : PRONOUNCEMENT OF THREE DIVORCES
    Book 9, Number 3491:

    Ibn ‘Abbas (Allah be pleased with them) reported that the (pronouncement) of three divorces during the lifetime of Allah’s Messenger (may peace be upon him) and that of Abu Bakr and two years of the caliphate of Umar (Allah be pleased with him) (was treated) as one.But Umar b. Khattab (Allah be pleased with him) said: Verily the people have begun to hasten in the matter in which they are required to observe respite.So if we had imposed this upon them, and he imposed it upon them.

    Book 9, Number 3492:

    Abu Sahba’ said toIbn ‘Abbas (Allah be pleased with them): Do you know that three (divorces) were treated as one during the lifetime of Allah’s Apostle (may peace be upon him), and that of Abu Bakr, and during three (years) of the caliphate of Umar (Allah be pleased with him)?Ibn Abbas (Allah be pleased with them) said: Yes.

    Book 9, Number 3493:

    Abu al-Sahba’ said to Ibn ‘Abbas: Enlighten us with your information whether the three divorces (pronounced at one and the same time) were not treated as one during the lifetime of Allah’s Messenger (may peace be upon him) and Abu Bakr.He said: It was in fact so, but when during the caliphate of ‘Umar (Allah be pleased with him) people began to pronounce divorce frequently, he allowed them to do so (to treat pronouncements of three divorces in a single breath as one).

  2. নিচের লিন্কের মতামত বোধ হয় আপনি নিবেন না। তারপর ও দিলাম। অন্যদের লাভ হবে ইনশাআল্লাহ।

    http://www.islam-qa.com/en/ref/96194/three%20divorce%20at%20once

    হাফিজ

    @Abu Aaisha, ভাই , রাগ করবেন না , আমি আলোচনার সুবিধার জন্য বলছি আপনার লিংকে কিন্তু চার ইমামের কোনো বক্তব্য পেলাম না , যেটা আপনি উল্লেখ করেছেন ।

  3. আলহামদুলিল্লাহ, আমি ভেবেছিলাম এটা নিয়ে কিছু লিখবো কিন্তু আপনি আমার কাজ করে দিলেন ঃ)।

  4. আপনার লেখার ভঙ্গী ও মূলবক্তব্য ভালো লেগেছে।
    আচ্ছা আপনি বাংলাদেশের যে দুজনের নাম বললেন, তাঁদের ওয়েবসাইট আছে কি ? আমি বিদেশে থাকি – তাই জানতে চাচ্ছি।

  5. একটা বিষয় পরিষ্কার করে নেইঃ

    আমি সেদিন জানতে পারলাম যাকাতের ব্যাপারে ঈমাম আবু হানীফার মতামত টিই সবচেয়ে ঠিক।

    আমার প্রশ্ন আপনি কেমন করে জানতে পারলেন? নিজে পড়ে? না করো কাছে শুনে? কিভাবে জানতে পারলে সেটা জানালে বড়ই কৃতার্থ হতাম।
    এই প্রশ্নের উত্তর দিন, তারপর আলোচনা চলবে।

    হাফিজ

    @তামীম, আমিও অপেক্ষা করছি এই প্রশ্নের উত্তরের জন্য ।

    Abu Aaisha

    @তামীম, এবং @ হাফিয, খুব কষ্ট পেলাম আপনাদের মনোভাব দেখে। আপনাদের লিখাতে ঠাট্টা বিদ্রুপের ইন্গিত স্পষ্ট।রেফারেন্স খুজলেই দেওয়া যেত। নিজের মুসলিম ভাই কে এমন ঘৃণা করে কি লাভ হাসিল করছেন তা বোধগম্য নয়।যাই হোক, আমি এটি Sheikh Jamaal al-Din M. Zarabozo এর Towards Understanding Islam – Part I বই পড়ে জেনেছি। এ বই আপনারা যোগাড় করে পড়তে পারেন। এটি তার অনেকগুলো লেকচারের সংকলন। তিনি আকাশ থেকে নামিয়ে এই মতামত দেননি। সব মাযহাবের ঈমামগন কিভাবে যাকাতের ফিক্‌হ দিয়েছেন তা তিনি রেফারেন্স সহ উল্লেখ করে তারপর বলেছেন অতীতের এবং বর্তমানের আলেমদের মতে কোনটি সবচেয়ে গ্রহনযোগ্য। উনার জুমুআর খুতবা পাওয়া যায় ইন্টারনেট এ। আমেরিকা তে বসে উনি যেভাবে দ্বীন প্রচার করেন তা থেকে আমাদের শিখার আছে। পারলে শুনবেন।
    সব শেষে বলি, আমি যে নিজে পড়ে বা কারো কাছে শুনে এই ফিক্‌হ জানিনাই, এটা আমার লিখাতেই আছে। আপনাদের চোখে পড়ে নাই।খুব কষ্টের। আপনাদের মনোভাব না পাল্টালে আসলে তর্ক ই হবে, কোন লাভ হবেনা। আমি আপনাদের মুসলিম ভাই। আমি এই ধরণের তর্কে আগ্রহী নই।

    হাফিজ

    @Abu Aaisha, এত আবেগপ্রবন যদি হন, তাহলে এই সংক্রান্ত বিষয় লেখা না দেয়াই ভালো । আপনি কি চাচ্ছেন কেউ কোনো প্রশ্ন না করুক ? কেউ যদি কোনো প্রশ্ন না করে তাহলে “আলোচনা” র অর্থ কি ?

    আমার প্রশ্ন আপনি কেমন করে জানতে পারলেন? নিজে পড়ে? না করো কাছে শুনে? কিভাবে জানতে পারলে সেটা জানালে বড়ই কৃতার্থ হতাম।
    এই প্রশ্নের উত্তর দিন, তারপর আলোচনা চলবে।

    এই লেখার মধ্যে কিসে তাচ্ছিল্য পেলেন ?

    হাফিজ

    @Abu Aaisha,


    আমি এটি Sheikh Jamaal al-Din M. Zarabozo এর Towards Understanding Islam – Part I বই পড়ে জেনেছি।

    যে প্রশ্ন করা হয়েছিল এবার সে প্রসংগে আসি । আপনার কথায় বোঝা যাচ্ছে আপনি নিজের থেকে এই ধারনা না করে আলেমের অনুসরন করেছেন । এটাই সঠিক পথ । ( এখানে আলেম যাচাই করার পদ্ধতি সম্বন্ধে আসছি না , সেটা পরে হবে )

    এখন আমিও যদি অনেক আলেমের মতামত যাচাই করে , হানাফী মাজহাবকে আমার অনুসরনের জন্য সবচেয়ে উপযোগী মনে করি , তাহলে সেটা আপনার দৃষ্টিতে কি সঠিক ?

  6. এক.
    ১. আমি যদি মুজতাহিদ হতাম, তবে আমি কারো তাকলিদ করতাম না। নিজেই সিদ্ধান্ত নিতাম।
    ২. আমি যখন মুজতাহিদ না, তখন আমি একজন মুজতাহিদের অনুসরণকে শ্রেয় মনে করি। বরং আমি হানাফি মাযহাবের অনুসারি হিসবে অগণিত মুজতাহিদের ঐক্যমত্যে পৌঁছা সিদ্ধান্তের ওপর আমল করে থাকি। কারণ হানাফি মাযহাব মানে ইমাম আবে হানিফা(রহ.) এর একক মত না, বরং কমপক্ষে ৪০ জন মুজতাহিদের ঐক্যমত্যে পৌঁছা সিদ্ধান্ত। হানাফি মাযহাবের অনেক মাসআলা ইমাম আবু হানিফা(রহ.) এর মত হতে আলাদা।

    দুই.
    একজন মুজতাহিদ/কোন মাযহাবের ফকিহগণ মাসআলা আহরণের ক্ষেত্রে একটা মূলনীতি অনুসরণ করে থাকেন। আমি যখন কোন মুজতাহিদের অনুসরণ করি, তখন পরোক্ষভাবে আমিও সেই মূলনীতিকে মেনে নিয়েছি, যদিও সেই মূলনীতি আমার জানা না থাকুক।
    এখন কোন এক মাসআলায় আমি যদি আমার মুজতাহিদের/আমার মাযহাবের মাসআলা অনুসরণ না করে অন্য কোন মাযহাবের মাসআলা অনুসরণ করতে চাই সেক্ষেত্রে,

    -আমাকে অতটুকু যোগ্যতাসম্পন্ন হতে হবে যে আমি মুজতাহিদদের মাসআলা প্রণয়নের সঠিকত্ব বিচার বিশ্লেষণ করতে পারি। অতটুকু যোগ্যতা যদি আমার থাকত তবে তো আমিই একজন মুজতাহিদ হতাম।
    - আমার এতটুকু জ্ঞান থাকতে হবে যে নতুন এই মাসআলা প্রণয়নের মূলনীতি, আমার অন্যান্য মাসআলা প্রণয়নের মূলনীতির সাথে সাংঘর্ষিক নয়। এইকাজ তার দ্বারাই সম্ভব যিনি একজন ফকিহ। আমার মত সাধারণ মানুষের জন্য এটা বিপদসঙ্কুল রাস্তা।

    তিন.
    যুগ ও পরিস্থিতির চাহিদা পূরণার্থে মাযহাবের ফকিহগণ প্রয়োজন মুতাবিক অন্য মাযহাবের এমন মাসআলাও গ্রহণ করতে পারেন যা মাযহাবের মাসআলা আহরণের মূলনীতির সাথে সাংঘর্ষিক নয় এবং সেটা তারা করেও থাকেন।
    যেমন,
    হানাফি মাযহাব অনুসারে নিখোঁজ স্বামীর স্ত্রীকে অন্যত্র বিবাহের জন্য ৯০ বছর অপেক্ষা করতে হবে।
    কিন্তু
    থানভী(রহ.) মালেকি মাযহাব অনুসারে ৪ বছর অপেক্ষার ফতোয়া দিয়েছেন।

    চার.
    বিষ খাওয়া হারাম, কিন্তু কেউ যদি খায় তবে তার প্রতিক্রিয়া ঠিকই হবে।
    এবার আসল প্রসঙ্গে আসি:
    ১. তিন তালাক একসাথে দেওয়া হারাম,
    ২. কেউ একসাথে তিন তালাক দিলে তার কবিরা গুনাহ হবে।
    ৩. কিন্তু তালাক তিনটাই পড়বে।

    এটাই ৪ মাযহাবের সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত।
    ———
    Many people object to this by saying: “ If the divorce is unlawful, then why should it come in to effect?”. The simple answer to this is that one should not say why, how and but, etc., when there are clear evidences from the Qur’an and Sunnah declaring the pronouncement of three divorces at once to be three divorces, then it is necessary that one accepts it without any hesitation. These evidences will be mentioned further along Insha Allah, however I would like to answer this from a analogical point also.

    A example which this humble servant usually gives when asked regarding this issue is that, Allah Almighty has prohibited murder as is common knowledge. It is a totally outrageous act, condemned by humanity, let alone all the religions.

    Now, when a person is killed and murdered without any (lawful) reason, one can not say that, due to this act being prohibited he should not die!!!. If a person was to say that, then he will be regarded insane by everybody. The act being unlawful does not prevent the death.

    The great Imam al-Kawthari refuses to use analogy in this issue in his famous work on the subject ‘al-Ashfaq ala Ahkam al-Talaq’. He says : “We are not in need of any analogy as the evidences are clear and explicit from the Messenger of Allah (Allah bless him and give him peace), but an example for it is ‘Zihar’ (likening the wife to the back of a mahram woman, i.e. in prohibition). This has been described in the Qur’an as “ evil and false”, yet the effect will still remain” (al-Ashfaq, P:13).

    Therefore, if a man pronounced three divorces at once by stating to the wife: “I divorce you three times” or by saying: “I divorce you”, three times, then three divorces will be effected and the divorce will be irrevocable. The woman will be free to re-marry another man after the termination of her Iddah. She can not return to her former husband’s marriage unless she is divorced once again from her second husband.

    This is the position held by all the Sunni schools of Islamic law, i.e, Hanafi, Shafi’i, Maliki and the Hanbali. This was also the view of the overwhelming majority of Sahaba (Allah be pleased with them) and Tabi’in (followers). Only the Ja’fariyya sect amongst the Shi’a and those who followed the literal meaning of the texts, like Imam Ibn Taymiyya and his student Ibn al-Qayyim differed with this view. There view, however, was not accepted by the majority of the Ummah (See Ibn Qudama in al-Mugni, V:7, P:104).

    Some of the evidences declaring the three divorces to be in effect:

    1) Allah Almighty says in the Qur’an:

    “Divorce is (only permissible) twice, thereafter either retaining her honorably or releasing her kindly…If he divorces her (the third time), she will not be lawful for him unless she marries another husband (and he also divorces her)” (Surah al-Baqarah, V:229/230).

    2) Sayyidatuna Aisha (Allah be pleased with her) reports that: A man pronounced three divorces to his wife. She (after her Iddah) married another man. The Messenger of Allah was asked if it was lawful for her to return to the first husband. He said: “ Not until they have sexual intercourse” (Recorded by Imam al-Bukhari in his Sahih).

    It is clear from the above Hadith that three divorces at once will be effected. The woman was allowed to marry another man. The Prophet of Allah (Allah bless him and give him peace) would have surely pointed out, had three divorces did not come into effect at once. The husband in this incident pronounced all three divorces at once as the great scholar of Hadith, Ibn Hajr rightly points out in his monumental commentary of Sahih al-Bukhari, ‘Fath al-Bari’.

    3) The Companion Uwaimir al-Ajlani (Allah be pleased with him) pronounced three divorces at once to his wife in the presence of the Prophet of Allah (Allah bless him and give him peace), which has been recorded by Imam al-Bukhari and others in the famous incident of Mula’ana or li’an (Public imprecation). The Messenger of Allah (Allah bless him and give him peace) did not negate what he said, which is a sign that all three divorces were effected. Also, all the companions (Allah be pleased with them) considered them be in effect.

    4) Sayyiduna Hasan ibn Ali (Allah be pleased with him) said (in a long Hadith, after divorcing his wife):

    “ Had I not heard my father (Ali) narrating from my grandfather (Sallallahu Alayhi Wasallam) say: “when a man pronounces three divorces, then his wife will no longer remain lawful for him, unless she marries another man”, I would have taken my wife back”. (Sunan al-Bayhaqi)

    There are many other narrations recorded by the scholars of Hadith in their respective books, but time does not allow us to mention them all. The above evidences are sufficient for a person who intends to seek the truth.

    Those who hold the view of only one divorce being effected, usually present the following narration of Ibn Abbas in support of their argument.

    Sayyiduna Ibn Abbas (Allah be pleased with him) says:

    “ Three divorces were considered as one in the time of the Prophet (Allah bless him and give him peace), Abu Bakr and in the first two years of Umar’s reign. Thereafter Umar (Allah be pleased with him) declared it to be three divorces” (Sahih of Imam Muslim).

    The scholars of Hadith have analyzed this narration thoroughly in the context of all the other narrations. The great Hafidh Ibn Hajr deals with it in detail in his Fath al-Bari.

    One of the meanings mentioned by the scholars is that, this narration is specific to only one situation, that is, when a person pronounces three divorces, but the repetition is only for emphasis and not to issue another divorce. In the early days people were morally more sound and reliable and thus when they said that it was only for emphasis and not to issue another divorce, it was taken at face value.

    Umar (Allah be pleased with him) however, observed in his time that, people are becoming morally corrupt. Bad habits such as deceiving, cheating and lying, etc., have become prevalent. As a result he declared that, people’s statements will not be accepted as far as the courts are concerned. If the man is adamant that he only repeated the words to emphasize, then this will be between him and Allah.

    In conclusion, if a person pronounced three divorces at once in any way, then in the light of the above evidences and in accordance with the scholarly consensus, it will be considered as three divorces.

    And Allah knows best

    Muhammad ibn Adam al-Kawthari

    হাফিজ

    @সাদাত,

    এটাই বোধহয় পৃথিবীর একমাত্র বিষয় যেখানে তিন বললে অনেক এক বোঝে । যদি তিন বললে একই হোতো তাহলে এক তালাক দিলে কি হবে ? -২ ?

    মাহমুদ

    @হাফিজ, এখন ‘তিনেই এক’- এই সবক চলিতেছে। আরো কিছুদিন সম্ভবত এই সবক চলিতে থাকিবে। অত:পর এলম-কালামে অজ্ঞ উল্লেখযোগ্যসংখ্যক ভক্তের আসর যখন জমিয়া উঠিবে তখন হয়ত তাহারা দ্বিতীয় পাঠে রুজু হইয়া কীর্তন গাহিবে “একেই তিন, তিনেই এক”। বেশ, তিন তালাকের ভিতর দিয়া ত্রিত্ববাদের সবক পূর্ণ হইল।

    হাফিজ

    @সাদাত,

    http://www.peaceinislam.com/munis/541/

    http://www.peaceinislam.com/munis/740/

  7. আপনি বলেছেন, আমরা সব ঈমাম এবং আলেমদের (কোরান সুন্নাহ এর আলোকে যারা কথা বলেছেন, বলছেন এবং বলবেন) শ্রদ্ধা করব কিন্তু কখনও হানাফি,মালিকি,শাফী,হামবলী, আহলে হাদীস বলে নিজেদের অন্য মুসলিম ভাই থেকে আলাদা করবনা।

    আনন্দিত হলাম আপনার বক্তব্য শুনে, আসলে এটাই উচিত। কিন্তু আমরা কি তা করি? বেশ কিছুদিন আগে এক আহলে হাদীস ভাই আমাকে কিছু বই পড়তে দেন। বইগুলো পড়ে খুব ভালো লাগল, কিন্তু হঠাৎ খটকা বাধল দেখি একটি বইয়ের নাম- ‘মাযহাব মানা কুফুরি’। বইটিতে মাযহাবের ইমামদের করুন পরিণতি দেখে আমার তো কান্নাই এসে গিয়েছিল। মাযহাবিরা নাকি তাকলিদের নামে শিরকও করে।

    আমরা হানাফি মাযহাবের অনুসারিরাতো অপর তিন মাযহাবের অনুসারিদের মত আহলে হাদীস ভাইদেরও আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের মধ্যেই গন্য করে থাকি। কিন্তু…… ইস! আমরা কবে যে নিজেদের অন্য মুসলিম ভাই থেকে আলাদা করবনা।

    হাফিজ

    @মাহমুদ, বইটির নাম দেয়া যায় kindly , পড়ে দেখতাম ।

    মাহমুদ

    @হাফিজ, বইটির নাম তো দেওয়াই আছে-’মাযহাব মানা কুফুরি’। এছাড়াও আহলে হাদীস পত্রিকা, আত-তাহরীক -এও ইমামগনকে হেয় করা হয়। আচ্ছা বলতে পারেন, “আহলে হাদীস মসজিদ” নামে পৃথক মসজিদ করা হয় কেন? এই কি ” নিজেদের অন্য মুসলিম ভাই থেকে আলাদা করব না।” এর নমুনা। হানাফী মসজিদ, শাফেঈ মসজিদ, মালেকী মসজিদ, হাম্বলী মসজিদ নামে কোন মসজিদ আমি অন্তত দেখিনি।

    হাফিজ

    @মাহমুদ, হু চিন্তার বিষয় । বংশালে যে “আহলে হাদিস” মসজিদ আছে সেটাতে নাকি সাধারন মুসলিমরা ঢুকতেই সাহস পায় না ।

    মাহমুদ

    @হাফিজ, খুলনায় হঠাৎ মাগরিবের সময় হয়ে যাওয়ায় একটি মসজিদ দেখে ঢুকে পড়ি। হায়! যদি জানা থাকত সেটি “আহলে হাদিস” মসজিদ। রফয়ে ঈয়াদাইন না করায় সবাই আমাকে যে ভাবে দেখছিলো, যেন আমি ভিন গ্রহের লোক! ওটাই ছিল “আহলে হাদিস” মসজিদে আমার শেষ যাওয়া।

  8. My cousin gave talaaq to his wife three times in succession at 1 sitting. Is this talaaq valid or does it have to be in 1 month interval. Please advice.

    When a man gives his wife (conceived or not) three Talaaqs (verbally or in
    writing) it is classified as Talaaq Mughallazah (literally meaning three
    Talaaqs; whether these Talaaqs were issued in one sitting or on different
    occasions), they are still valid and regarded as three.

    দলীল-প্রমান সহ বিস্তারিত দেখুন

  9. My cousin gave talaaq to his wife three times in succession at 1 sitting. Is this talaaq valid or does it have to be in 1 month interval. Please advice.

    When a man gives his wife (conceived or not) three Talaaqs (verbally or in
    writing) it is classified as Talaaq Mughallazah (literally meaning three
    Talaaqs; whether these Talaaqs were issued in one sitting or on different
    occasions), they are still valid and regarded as three.

    দলীল-প্রমান সহ বিস্তারিত দেখুন http://www.islam.tc/cgi-bin/askimam/ask.pl?q=2797&act=view

    সাদাত

    @মাহমুদ,

    When a man gives his wife (conceived or not) three Talaaqs (verbally or in
    writing) it is classified as Talaaq Mughallazah (literally meaning three
    Talaaqs; whether these Talaaqs were issued in one sitting or on different
    occasions), they are still valid and regarded as three.

    and Allah Ta’ala Knows Best

    Mufti Ebrahim Desai
    FATWA DEPT.

    THREE TALAAQS

    A Nikah is meant to last a lifetime. However at times when the marriage has, despite all efforts to save it reached a point of no return, the Shariah has permitted the dissolution of the Nikah by means of Talaaq. Nevertheless, this is the very last resort. Rasulullah (Sallallaaahu ?layhi Wasallam) is reported to have said: “The most detested of all permissible things is Talaaq.?
    The most severe form of Talaaq is the issuing of three Talaaqs. This irrevocably severs the marriage, whether such Talaaq was issued over a period of time or whether in one sitting and in one breath. This is the clear ruling established from the Qur?n and Hadith.

    Some ’scholars’ consider the giving of three Talaaqs in one sitting as ‘one Talaaq’. As a result of this ruling, some couples that have divorced are using this ‘view’ to re-unite and reconcile in marriage.

    It must be remembered that the Jamiat has a standing policy always to ‘make a marriage – never to break it’. This depends entirely on the couple’s situation and decision in their marriage. In the case where a husband confronts his wife saying, ‘I divorce you, I divorce you, I divorce you’, whether in one sitting or even in one breath, according to the Shari’ah three Talaaqs have taken place and the marriage is totally severed.
    Based on the Noble Qur’an and Hadith of Rasulullah (Sallallaaahu ?layhi Wasallam), the four most respected and distinguished scholars, viz. Imaam Shaaf’ee, Imaam Abu Hanifa, Imaam Maalik, Imaam Ahmed bin Hambal (RA) hold the view that three Talaaqs occur even when they are issued simultaneously. The discussion hereunder elaborates on this question in detail

    1- Allah Ta?la says in the Noble Qur’an:
    ‘Divorce is twice’. (Qur’an 2:229)

    In Jalaalain Shareef, a widely accepted commentary of the Noble Qur’an, the explanation of the above verse is given as follows:
    ‘The divorce after which it is permissible to revoke is two (divorce)’
    It is further stated that:
    ‘If the husband divorces (his wife) after two divorces then she is not Halaal for him after the third divorce’. (Jalaalain p.34)

    2- Explaining the above verse, Abu Bakr Jassas Razi (Rahmatullaahi ?laihi), an expert Jurist, states in Ahkaamul Qur’an:
    If both Talaaqs are given together, both will be effective and this is clearly indicated in the Qur’an. (Vol.1 p.387)

    Abu Bakr Jassas Razi (Rahmatullaahi ?laihi) further explains:
    ‘(Upon issuing the third divorce), she will not be permissible for him (the husband). There is no difference whether the (divorces) were given in one Tuhr (clean period) or two different Tuhr (clean periods). The ruling will apply with regard to the issuing of all three divorces in whichever way the husband had issued them. (ibid.)

    While a detailed explanation from authentic Tafaaseer could be given pertaining to three Talaaqs being effective in one sitting, in the interest of brevity, we will substantiate the same from the Ahaadith of Rasulullah (Sallallaaahu ?layhi Wasallam)
    1- Hadhrat Ali (Radhiyallaahu ?nhu)reports that when Rasulullah (Sallallaaahu ?layhi Wasallam) heard one person giving his wife three divorces, Rasulullah (Sallallaaahu ?layhi Wasallam) became angry and said:
    ‘You are making a mockery of the verses of Allah and the Deen of Allah. Whosoever gives his wife a terminating divorce, we will make three binding on him. His wife will not be Halaal for him until she does not marry another husband.’(reference)

    If three Talaaqs given together were regarded as one then the Prophet (Sallallaaahu ?layhi Wasallam) would not have got angry. He would not have said, ‘We impose three Talaaqs on him’. He did not even ask if the Talaaqs were given in one sitting. This Hadith is clear in that three divorces given together will be three divorces and not one.
    ‘It is reported from Mahmood Ibn Labid that Rasulullah (Sallallaaahu ?layhi Wasallam) was told of a person who had given his wife three divorces at once. Rasulullah (Sallallaaahu ?layhi Wasallam) stood up in the state of anger and said, ‘Are you playing with the Aayats of Allah and His Kitaab whilst I am among you.’ A person stood up and said, ‘Oh Rasulullah! Should I not kill him?’(reference)

    This Hadith too is explicit that three Talaaqs were given together; therefore Rasulullah (Sallallaaahu ?layhi Wasallam) got angry. If three Talaaqs were one, Rasulullah (Sallallaaahu ?layhi Wasallam) would not have become angry. The Sahaaba also understood from Rasulullah (Sallallaaahu ?layhi Wasallam) that three Talaaqs were valid and that is why one Sahaabi even asked for permission to kill the person who gave his wife three Talaaqs.

    ‘Ibn Umar (Radhiyallaahu ?nhu) was asked about a person who gave Talaaq three times. He remarked, ‘If he had given her one or two divorces for which Rasulullah (Sallallaaahu ?layhi Wasallam) ordered me the same. But if he had given her three Talaaqs then she is Haraam upon him until she marries another man.’REFERNCE

    In the incident of Lia’an, Hadhrat Uwaymir said to the Prophet (Sallallaaahu ?layhi Wasallam), ‘I have spoken a lie on her if I kept her (as my wife). Hence divorced her three times.’(reference)

    Abu Bakr Jassas Razi (RA) also quotes this Hadith to substantiate that three divorces in one sitting are three. This was done in the presence of Rasulullah (Sallallaaahu ?layhi Wasallam). The Prophet (Sallallaaahu ?layhi Wasallam) acknowledged its validity as three.

    5- Once Imaam Hassan (Radhiyallaahu ?nhu) told his wife: ‘Go away, for you are divorced thrice’
    When he was grieved at the separation of his wife, he said:

    ‘If I had not heard my grandfather (Rasulullah) (or if my father did not tell me that he heard my grandfather) saying, ‘Whosoever gives his wife three Talaaqs in the state of Tuhr (cleanliness) or three Talaaqs together, she is not Halaal for him until she does not marry another man, I would have taken her back.? (reference)

    This incident reiterates the fact that three Talaaqs in one sitting is three and not one. If anyone who was worthy of any exception to the Law, it would be the illustrious grandson of Rasulullah (Sallallaaahu ?layhi Wasallam), Hadhrat Hassan bin Ali (Radhiyallaahu ?nhu). However, this was not the case. The rule of three Talaaqs in one sitting was binding on him too.

    Let us now look at the view of some of the great scholars of Deen on the issue of three Talaaqs being regarded as three in one sitting.

    1- Imaam Bukhari’s (RA) expertise in the field of Hadith is unanimously accepted. His research in the matter of three Talaaqs concludes that three Talaaqs in one sitting is three and not one. In his Sahih he titled a chapter with the following heading: ‘The chapter of he who permits three Talaaqs.’ He supports this title with the following Hadith:

    Hadhrat Ayesha (Radhiyallaahu ?nha) narrates that a man gave his wife three divorces. The wife remarried and (incidentally) her (second) husband divorced her. It was then asked of Rasulullah (Sallallaaahu ?layhi Wasallam), ‘Is she Halaal for the first husband?’ He (Rasulullah) replied, ‘No, not until he tastes her sweetness (consummates the marriage) like how the first husband tasted her sweetness.’ (Vol. 2 page 791)

    With regard to the above incident Hafiz Ibn Hajar explains that the husband had given his wife three Talaaqs together. He says:

    ‘His words ?divorced thrice? explicitly indicates that (the Talaaqs) were given together.’(reference)

    2- Imaam Muslim (RA) (a famous student of Imaam Bukhari) also holds the same view as Imaam Bukhari (RA).

    Imaam Nawawi (RA) writes:
    ‘Imaam Shaaf’ee, Imaam Maaliki, Imaam Abu Hanifa, Imaam Ahmad and all the Ulama of the past say that three Talaaqs in one sitting is three?.(reference)

    Some people attempt to justify their claims that three talaaqs in one sitting constitutes only one Talaaq, by citing the Hadith of Hadhrat Rukana (Radhiyallaahu ?nhu). It is claimed that Hadhrat Rukaana ibn Yazid (Radhiyallaahu ?nhu) pronounced three Talaaqs in one sitting, but Rasulullah (Sallallaaahu ?layhi Wasallam) declared that it constituted only one talaaq. However, this Hadith does not contain any clear indication that three talaaqs were issued.

    In an explanation to this Hadith, Imaam Muslim quotes many narrations, which mention that Rukana (Radhiyallaahu ?nhu) pronounced Talaaq Al-Battat. The word ‘Al-Battat’ could mean one Talaaq or three Talaaqs. This is dependent on the intention. Therefore Rasulullah (Sallallaaahu ?layhi Wasallam) did not ask him, ‘How did you pronounce the divorces?’ but instead, he asked him, ‘What did you intend with that?’ Rasulullah (Sallallaaahu ?layhi Wasallam)) did not even ask if he pronounced it in one sitting. The complete text of this Hadith is as follows:

    ‘Abdullah ibn Yazid ibn Rukana (Radhiyallaahu ?nhum) reports from his father who reported from his grandfather saying: ‘I came to Rasulullah (Sallallaaahu ?layhi Wasallam) and said, “Oh` Prophet of Allah! I pronounced Talaaq Al-Battat to my wife”. Rasulullah (Sallallaaahu ?layhi Wasallam) asked him, “What did you intend with that (Al-battat)”, I said, “One (divorce)”. The Prophet (Sallallaaahu ?layhi Wasallam) said, “By Allah (do you swear)?” I said, “By Allah (I swear).” Rasulullah (Sallallaaahu ?layhi Wasallam) said, “Then it is according to what you intend.”(Muslim Shareef, Chapter on Talaaq; Tirmidhi Vol.1 p.140; Abu Daawood Vol. 1 p. 306.

    If we suppose that it was a general rule that three divorces in one sitting constitutes one divorce, then why did the Rasulullah (Sallallaaahu ?layhi Wasallam) ask him his intention. This questioning in itself indicates that there is a possibility that it could be one or three. The purpose of the questioning was definitely not to ask whether it was in one sitting or not because there is no mention of this in any Sahih Hadith.

    Even the great Sahaabi Hadhrat Ibn Abbas (Radhiyallaahu ?nhuma) declared three talaaqs to be three. This is clearly ascertained from the following narrations.

    Mujahid reports, ‘I was in the company of Ibn Abbas (Radhiyallaahu ?nhuma) when a man came and informed him that he had given his wife three Talaaqs. Ibn Abbas (Radhiyallaahu ?nhuma) remained silent and we thought that he would send her back to him. Then he said; ‘You walk and ride on stupidity, then you say: “Oh` Ibn Abbaas! Oh` Ibn Abbaas!” Allah says, “Talaaq (after which revoking is permissible) is twice…” You have disobeyed your Rabb and your wife is separated from you.’(Abu Daud)

    Imaam Maalik (RA) in his Muwatta’a quotes the Fatwa of Ibn Abbaas (Radhiyallaahu ?nhuma) as follows;
    ‘It has reached me (Maalik) that one person said to Ibn Abbaas, “I divorced my wife a hundred times, what will you rule on me?” Ibn Abbaas said, “She is divorced from you with the first three Divorces and for the ninety-seven, you have taken the Aayats of Allah as a mockery.”

    From the above quotation it is clear that Ibn Abbas (Radhiyallaahu ?nhuma) gave the verdict of three Talaaqs without enquiring the manner i.e. whether given in one Majlis (sitting) and without asking about the intention of the number of Talaaqs. Hence it is absolutely clear that three divorces issued simultaneously will be effective and they will irrevocably sever the Nikah.

    Hence Talaaq should not be treated lightly. It is a serious matter with extremely serious consequences.

    হাফিজ

    @সাদাত, লিংকটা দেয়া যাবে ?

    সাদাত

    @হাফিজ,
    মাহমুদ ভাই তো লিংক দিয়ে দিয়েছে। আমি কপি পেস্ট করলাম।