লগইন রেজিস্ট্রেশন

লেখক আর্কাইভ

 

প্রশ্নঃ রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর কিছু কাজ অপছন্দ হওয়া সম্পর্কে

লিখেছেন: ' মুনিস মোর্শেদ' @ রবিবার, মে ২৯, ২০১১ (১:১৬ অপরাহ্ণ)

প্রশ্নঃ কেউ যদি বলে আমি আল্লাহ, রাসূল কুরআন ও আখিরাতের উপর ঈমান রাখি কিন্ত আল্লাহর রাসূলের কিছু কাজ আমার পছন্দ হয়না। যেমন এত কম বয়সে আয়েশা রাঃ কে বিয়ে করা। বাদীদের সাথে মিলামিশা করা প্রভৃতি। তবে কি সে মুসলমান থাকবে?
উত্তরঃ প্রায় সমস্ত মশহুর তফসীর হাদীসের শরাহ ফেকাহ ও আকায়েদের কিতাবের মর্মে জানা যায় যে, হুজুর পাক সাঃ এর একটি চুল মুবারক ও যদি কেউ অবজ্ঞা করে। অথবা যদি তার সংশ্লিষ্ট কোন বিষয়কে কেউ অপছন্দ করে বা দোষারূপ করে তবে .....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

নবীজির কিছু অনন্য বৈশিষ্ট – ১

লিখেছেন: ' মুনিস মোর্শেদ' @ বৃহস্পতিবার, মার্চ ১৮, ২০১০ (৯:৫৫ পূর্বাহ্ণ)

রসুলুল্লাহ (সাল্লাললাহু আলাইহে ওয়া সাল্লাম ) এর কিছু অনন্য বৈশিষ্ট মোবারক দেয়া হোলো :

১) সর্বশ্রেষ্ঠ নবী ও রসুল (সা:)

মুসলমানদের সর্বজন স্বীকৃত আকীদা বা বিশ্বাস হলো, সর্বশেষ নবী ইমামুল মুরসালীন, সাইয়্যিদুল আম্বিয়া হযরত মুহম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সকল আম্বিয়া-ই-কিরাম থেকে শ্রেষ্ঠ। এ প্রসঙ্গে শায়েখ নাজমুদ্দীন উমর বিন মুহম্মদ নাসাফী রহমতুল্লাহি আলাইহি আহলুস সুন্নাত ওয়াল জামাআতের আকীদা সম্পর্কে তার রচিত কিতাব “মতনুল আকাইদিন নাসাফিয়্যাহ”-তে উল্লেখ করেন,
وافضل الانبياء محمد عليه السلام-

আম্বিয়া কিরামের মধ্যে হযরত মুহম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওসাল্লাম সর্বশ্রেষ্ঠ।
.....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

রফে ইয়াদাইন না করার স্বপক্ষে দলীল – পর্ব ২

লিখেছেন: ' মুনিস মোর্শেদ' @ বৃহস্পতিবার, জানুয়ারি ২৮, ২০১০ (১:২৩ অপরাহ্ণ)

প্রথম পর্বের পর ।

সেকালে জ্ঞান বিজ্ঞানে কুফা নগরীর অবস্হান ও মর্যাদা কোন পর্যায়ে ছিল তা ইতিহাসের পাতায় স্বর্নাক্ষরে লেখা রয়েছে । বস্তুত: এর জন্য একটি আলাদা গ্রন্হ আবশ্যক । অতএব , ইসলামী বিশ্বের এ দুটি বৃহৎ মর্যাদাবান ও গুরুত্বপূর্ন ঐতিহ্যবাহী কেন্দ্রেই রফে ইয়াদাইন না করবার আমলের প্রচলন থাকায় এটাই প্রমানিত হয় যে রফে ইয়াদাইন না করার বিধান আমলীগতভাবে মুতাওয়াতির পর্যায়ের । ইমাম শাফিঈ (রহ:) মক্কাবাসীদের আমলের দিকটি বিবেচনায় নিয়ে রফে ইয়াদাইনের মতটি গ্রহন করেছেন । আর .....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

রফে ইয়াদাইন না করার স্বপক্ষে দলীল

লিখেছেন: ' মুনিস মোর্শেদ' @ মঙ্গলবার, জানুয়ারি ২৬, ২০১০ (৯:১৪ পূর্বাহ্ণ)

রফে ইয়াদাইন অর্থ উভয় হাত উত্তোলন করা । নামাজে তাকবীরে তাহরীমার সময় রফে ইয়াদাইন অনুমোদিত হওয়ার ব্যাপারে সকল ইমামগন একমত । শুধুমাত্র শিয়াদের মধ্য থেকে যায়েদিয়া সম্প্রদায় রফে ইয়াদাইন এর বিরুদ্ধ মত পোষন করে । অনুরূপ সিজদায় যাওয়া এবং সিজদা থেকে উঠার সময় হাত উঠানো সর্বসম্মতিক্রমে প্রত্যাখাত । তবে রুকুতে যাওয়া এবং রুকু থেকে উঠার সময় রফে ইয়াদাইন করা হবে কি হবে না , এ বিষয়ে মতবিরোধ রয়েছে । শাফেঈ ও হাম্বলীগন এ দুঅবস্হায় রফে ইয়াদাইন এর পক্ষে । .....

২৩ টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

আজরফ ভাই এর জিজ্ঞাসার উত্তর

লিখেছেন: ' মুনিস মোর্শেদ' @ বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ২৯, ২০০৯ (১:৩৯ পূর্বাহ্ণ)

প্রশ্ন: আমি জানতে চাই যে আল কোরানে বা হাদীসে কোথায় আছে যে ইহুদী বা খৃষ্টানদের ধর্ম ১। বিকৃত হয়ে গেছে , ২। বিলুপ্ত হয়ে গেছে ৩। বা এখন থেকে ( কোরআন নাজিলের পর থেকে ) শুধু কোরআনই একমাত্র আল্লাহর মনোনীত জীবন বিধান ?

উত্তর: আল্লাহপাক এরশাদ করেন :
إِنَّ الدِّينَ عِندَ اللّهِ الإِسْلاَمُ
“নিশ্চয়ই আল্লাহ পাকের কাছে একমাত্র মনোনীত দ্বিন হচ্ছে ইসলাম” ( সুরাহ ইমরান / ১৯ )

আল্লাহতাআলা আরো বলেন:

وَمَن يَبْتَغِ غَيْرَ الإِسْلاَمِ دِينًا فَلَن يُقْبَلَ مِنْهُ .....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

তালাকের প্রকারভেদ ও সংশ্লিষ্ট মাসআলা

লিখেছেন: ' মুনিস মোর্শেদ' @ সোমবার, অক্টোবর ২৬, ২০০৯ (৩:০৪ পূর্বাহ্ণ)

সংক্ষেপে তালাকের নিয়ম পদ্ধতি বর্ননা করা হলো:

১) তালাকে আহসান (সর্বোত্তম তালাক ) : মাসিক থেকে পবিত্র হবার পর দৈহিক সম্পর্ক স্হাপন না করে স্ত্রিকে এক তালাক দেয়া ।
এটি ‘রিজয়ী তালাক’ হিসেবে পরিগণিত হবে । স্ত্রীর ইদ্দত শেষ হওয়ার আগে স্বামী যদি দাম্পত্য সম্পর্ক বজায় রাখার সিদ্ধান্ত নেন , তাহলে স্ত্রীর সাথে দাম্পত্য সম্পর্ক বলবত রাখতে পারবেন । ( এর জন্য কিছু করতে হবে না , শুধু সিদ্ধান্তই যথেষ্ট ) । আর যদি ইদ্দত শেষ হয়ে যায় , তারপর .....

১০ টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

তিন তালাকের শরয়ী বিধান

লিখেছেন: ' মুনিস মোর্শেদ' @ সোমবার, অক্টোবর ১২, ২০০৯ (৩:২৯ পূর্বাহ্ণ)

প্রশ্ন: একসাথে তিন তালাক দিলে তালাক হয়ে যাবে কিনা ? অনেকে বলে থাকেন একসাথে তিন তালাক দিলে এক তালাক হবে , কথাটা কতটুকু সত্য ?

উত্তর:
আল্লাহ রব্বুল আলামিন কোরআন শরীফে উল্লেখ করেছেন:
“অত:পর সে যদি স্ত্রীকে (তিন) তালাক দেয় তবে সে স্ত্রি যে পর্যন্ত তাকে ছাড়া অপর কোনো স্বামীর সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ না হয় তার জন্য হালাল নয়। অর্থ্যাৎ, দ্বিতীয় স্বামী বিবাহ করে তালাক না দেয়া পর্যন্ত প্রথম স্বামী গ্রহন করতে পারবে না । ” ( সুরা বাকারা .....

১৪ টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>