লগইন রেজিস্ট্রেশন

আসুন তওবা করি

লিখেছেন: ' বাগেরহাট' @ শুক্রবার, মে ২১, ২০১০ (১১:২৩ পূর্বাহ্ণ)

‘বিসমিল্লাহির রহমানির রহিম’
ত………..ও……………..বা।
মহান আল্লাহকে খুশী করার সব থেকে ভালো উপায়।
তাই আসুন তওবা করি আর মহান রবকে খুশী করি।
বর্ণিত আছে, একজন সৎ ব্যক্তি রাস্তা দিয়ে যাচ্ছিলেন। তিনি একটি দরজা দেখতে পেলেন। ওটি খুলতেই একটি ছেলে বেরিয়ে এল। সে
আর্তনাদ করছিলো, কাঁদছিলো। তার মা পেছন থেকে তাকে তাড়া করলে
সে বেরিয়ে আসে। তাকে বাইরে রেখেই দরজা বন্ধ করে দেয়। ছেলেটি কিছু দূর গিয়েই থেমে গেল্ চিন্তা করতে লাগল। যে বাড়ী থেকে তাকে বের করে দেওয়া হয়েছে সে বাড়ী ছাড়া সে আর কোন আশ্রয় পেলোনা। তার মা ছাড়া তাকে আশ্রয় দেওয়ার মত কাউকে পেল না। সে ভগ্ন মনে চিন্তিত হয়ে ফিরে এল। দরজা বন্ধ ছিল। সে দরজায় গাল রেখে শু্য়ে পড়লো। তার গাল বেয়ে টপ টপ করে পানি পড়ছে। কিছুক্ষন পর তার মা বেরিয়ে এলেন। তিনি তাকে এ অবস্থায় দেখে তার উপর ঝাপিয়ে পড়লেন। তাকে জড়িয়ে ধরলেন। চুমু খেলেন। কাঁদতে লাগলেন। বললেন,বাবা, তুমি কোথায় গিয়েছিলে? আমি ছাড়া আর কে তোমাকে আশ্রয় দেবে? আমি
কি তোমাকে বলিনি, তুমি আমার বিরোধিতা করোনা। আল্লাহ আমাকে
তোমার প্রতি যে দয়া ও সহানুভূতি দিয়েছেন তা ছিন্ন করে তোমাকে শাস্তি দানে বাধ্য করো না। এরপর তাকে নিয়ে ভিতরে গেলেন।
কিন্তু আল্লাহর রসুল (সঃ) বলেছেন, এ মহিলা তার সন্তানের প্রতি যতটুকু দয়াশীলা আল্লাহ তাঁর বান্দাদের প্রতি এর চেয়েও বেশী দয়াশীল।মুসলিম।

আল্লাহ তাঁর বান্দার তওবায় খুশী হন যখন সে তওবা করে।যেমন–
“এক ব্যক্তি মরুভূমিতে ভ্রমন করছিলো। সে একটি স্থানে অবস্থান গ্রহন
করলো। তার সাথে ছিলো তার বাহন। বাহনে ছিলো তার খাবার ও পানীয়। সে একটি গাছের ছায়ায় আশ্রয় নিলো। সেখানে মাথা রেখে সে ঘুমিয়ে পড়লো। ঘুম থেকে জেগে দেখলো, তার বাহনটি নেই। সে ওটি খুজতে লাগল। একটি টিলায় উঠে দেখল নেই। আরেকটি টিলায় উঠল্ সেখানেও দেখতে পেল না। এমনকি যখন প্রচন্ড গরম ও পিপাসা দেখা দিল তখন ভাবল যেখানে ছিলাম সেখানে যাই। ঘুমে ঘুমে মরে যাব। তার বাহন সম্পর্কে নিরাশ হয়ে সে একটি গাছের ছায়ার কাছে এসে চিৎ হয়ে শুয়ে পড়লো। এমতবস্থায় সে মাথা উঠিয়ে দেখে বাহনটি তার পাশেই দাড়িয়ে। ওটি তার রশি টানছে। তাতে আছে তার পাথেয়, খাবার ও পানীয়। সে ওটির রশি চেপে ধরলো। এ ব্যক্তি তার বাহন ও পাথেয়
ফিরে পেয়ে যতটা খুশী, আল্লাহ তাঁর মুমিন বান্দার তওবায় তার চেয়েও বেশী খুশী।” সহীহুল জামে ৪/৩৫৮ ।

জেনে রাখুন, পাপ সত্যিকারের তওবাকারীর জন্য আল্লাহর সম্মুখে বিনয়-নম্রতার ভাব সৃষ্টি করে।

Processing your request, Please wait....
  • Print this article!
  • Digg
  • Sphinn
  • del.icio.us
  • Facebook
  • Mixx
  • Google Bookmarks
  • LinkaGoGo
  • MSN Reporter
  • Twitter
১৩১ বার পঠিত
1 Star2 Stars3 Stars4 Stars5 Stars (ভোট, গড়: ৫.০০)

৪ টি মন্তব্য

  1. সুন্দর লিখেছেন, ধন্যবাদ ।

  2. আল্লাহ তা’আলা আমাদেরকে সত্যিকারের তওবাকারী হওয়ার তৌফিক দিন।

  3. আসতাগফিরুল্লাহি রাব্বি মিন কুল্লি জামবিও ওয়াতুবু ইলাইহি, লা- – হাওলা ওয়ালা ক্বুয়্যাতা ইল্লাহ বিল্লাহিল আলিয়্যিল আজীম।

    আমিন।

    সাদাত

    @দ্য মুসলিম,

    প্রচলিত এই ইসতিগফারটা অর্থের দিক দিয়ে ঠিক আছে, পড়তেও কোন সমস্যা নাই; তবে এটি সরাসরি কোন হাদিস থেকে আসেনি। যেহেতু হাদিসে অনেক ইসতিগফার বর্ণিত আছে, তাই হাদিসে বর্ণিত কোন একটি ইসতিগফার পড়াই ভালো।