লগইন রেজিস্ট্রেশন

‘সুন্নাহ’ ক্যাটাগরি -এর আর্কাইভ

 

ডান কাতে ঘুমানো কি ক্ষতিকর?

লিখেছেন: ' Mahir' @ মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ১৮, ২০১৮ (১২:১২ পূর্বাহ্ণ)

Table of Contents

ভূমিকা…. 1

বাম কাতে ঘুমানো কি হারাম?. 2

ডান কাতে ঘুমানোর চাইতে ডান পাশ থেকে ঘুমানো শুরু করা বড় সুন্নাহঃ… 2

বাম কাতে ঘুমানোর জন্য নাস্তিকীয় সুন্নাহ বিশ্লেষণঃ… 3

এবার রিভিউ করিঃ…. 8

.....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

মাছির একটি ডানায় রয়েছে আরোগ্য

লিখেছেন: ' Mahir' @ শুক্রবার, অগাষ্ট ১৮, ২০১৭ (১:৫১ পূর্বাহ্ণ)

‘মাছি’ প্রসঙ্গে বিশ্বনবীর (সা.) এর সেই কথাটিই মেনে নিল আধুনিক বিজ্ঞান।

প্রায় ১৪০০ বছর আগে নাজিল হওয়া আল কোরআনের বিশ্লেষণ করে মানুষ মঙ্গল গ্রহ পর্যন্ত পৌঁছেছে। মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) ১৪০০ বছর আগে মাছি প্রসঙ্গে যে কথাটি বলেছিলেন, তা আমাদের আধুনিক বিজ্ঞানও মেনে নিয়েছে।

বুখারী ও ইবনে মাজাহ হাদীসে বর্ণিত, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘যদি তোমাদের কারো পাত্রে মাছি পতিত হয় সে যেন উক্ত মাছিটিকে ডুবিয়ে দেয়। কেননা তার একটি ডানায় রোগজীবাণু রয়েছে, আর অপরটিতে রয়েছে রোগনাশক ঔষধ’(বুখারী)।
وَعَنْ أَبِي .....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

খায়বার যুদ্ধ নাকি খায়বার ডাকাতি

লিখেছেন: ' Mahir' @ সোমবার, অগাষ্ট ১৪, ২০১৭ (৮:৩১ অপরাহ্ণ)

নাস্তিকরা আজকাল ইতিহাস বিকৃত করে প্রচার করছে। তাই এই পোস্ট না দিয়ে আর পারলাম না। খায়বারের যুদ্ধ নিয়ে নাস্তিকরা ৩ টি অভিযোগ এনেছে।

১] রাসূলুল্লাহ [সাঃ] অযথাই তাদের আক্রমণ করেছেন। মানে, খায়বারবাসী ধোয়া তুলসী পাতা।

২] রাসূলুল্লাহ [সাঃ] নিরস্ত্র মানুষের উপর ঝাঁপিয়ে পড়েছে। মানে, খায়বারবাসী জানতই না যে, তাদের আক্রমণ করা হবে।

৩] ঘুমন্ত মানুষের উপর আক্রমণ কেন করল?

১] খায়বারবাসীর অপরাধ কি?

খায়বার ছিল মদীনার উত্তরে আশি (৮০) কিংবা ষাট মাইল দূরত্বে অবস্থিত একটি বড় শহর। যে সময়ের কথা বলা হচ্ছে তখন সেখানে একটি .....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

তারাবীহের রাকআত সংখ্যা

লিখেছেন: ' Mahir' @ মঙ্গলবার, মে ৩০, ২০১৭ (১২:০৮ অপরাহ্ণ)


আপনি কি জানেন, ইমাম আবু হানীফা [রাহঃ] কত রাকআত তারাবীহ-র পক্ষে ছিলেন?

তারাবীহের রাকআত সংখ্যা পিডিএফ ফাইল-
তারাবীহের রাকআত সংখ্যা -১২ এমবি

.....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

হানাফী ওলামার নিকট জানতে চাই

লিখেছেন: ' Mahir' @ সোমবার, মে ২৯, ২০১৭ (৮:২২ অপরাহ্ণ)






.....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

তাওবা সম্পর্কে যা জানা জরুরি

লিখেছেন: ' Mahir' @ শুক্রবার, মে ৫, ২০১৭ (২:১৫ পূর্বাহ্ণ)

তাওবা (توبة) হলো মাসদার। অর্থ পাপ থেকে ফিরে আসা।
খারাপ কাজ-গুনাহ, পাপচার, অন্যায় অবিচার ও আল্লাহর নাফরমানি হতে ফিরে এসে, বান্দা নেক কাজ করার মাধ্যমে তার প্রভুর দিকে ফিরে আসাকে তাওবা বলা হয়।
তাওবা কবুলের শর্ত সমূহ ঃ
1.ভুল ক্রুটি আল্লাহর কাছে স্বীকার করতে হবে।
২.গুনার জন্য লজ্জিত ও অনুতপ্ত হওয়া
3.গুনাহ করা বন্ধ করে আল্লাহর কাছে ফিরে আসতে হবে
.....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

রাফউল ইয়াদাঈনের সব হাদীস : পক্ষে বিপক্ষের সবার দলীলই তো দেখলেন, এবার সব হাদীস নিজেই পড়ে সিদ্ধান্ত নিন। দেখুন: মাযহাবের নামে হানাফীরা আপনার সাথে কতবড় ধোঁকাবাজি করছে।

লিখেছেন: ' ABU TASNEEM' @ রবিবার, জানুয়ারি ২৪, ২০১৬ (৯:২৭ পূর্বাহ্ণ)

Raful Yadain

রাফউল ইয়াদাঈন অর্থ: দুই হাত উত্তোলন করা । এটি আল্লাহর নিকটে আত্মসমর্পণের অন্যতম নিদর্শন। সহীহ হাদীস থেকে জানা যায়, আল্লাহর রাসূল (সাঃ) স্বলাতে চার জায়গায় দু’হাত উঠাতেন অর্থাৎ চার জায়গায় রাফউল ইয়াদাঈন করতেন ।
১. তাকবীরে তাহরীমার সময় ২. রুকুতে যাওয়ার সময়
৩. রুকু থেকে উঠে সোজা হয়ে দাঁড়াবার সময় এবং
৪. তৃতীয় রাকায়াতে দাঁড়িয়ে বুকে হাত বাঁধার সময় ।
কিন্তু সহীহ হাদীস থেকে অসংখ্য দলীল থাকা স্বত্বেও আমাদের দেশের হানাফী মাযহাবের ফতোয়া হচ্ছে: নামাযে প্রথম তাকবীর ছাড়া আর কখনো দুই হাত উঠাবে না । .....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

ভেবে দেখবে কি বোন ???

লিখেছেন: ' Hedayet Ullah' @ সোমবার, এপ্রিল ২৭, ২০১৫ (৯:৪৫ অপরাহ্ণ)

আমি তোমাকে মা আর বোনের মর্যাদা দিতে চাই বলে আমাকে “গেঁয়ো ভূত বলে গালি দিলে কিন্তু তারা তোমাকে অবাধ স্বাধীনতার নামে কি দিল? পৃথিবীর সামনে তোমার লুণ্ঠিত ইজ্জত!
মর্দে মুজাহিদ শেরে খোদা আল্লামা জিয়াউর রহমান ফারূকী নাওয়ারাল্লাহু মারকাদাহু বলেছেন “আয় আওরাত! তোমহারা ইজ্জত কিসনে ছিনা? জিসনে তোমহারা দোপাট্টা ছিনা” তথা হে নারী জাতি! তোমার সম্মান কে ছিনিয়েছে? যে তোমার উড়নাটি [আধুনিকার স্লোগান দিয়ে] খুলে নিয়েছে।
কিন্তু একথা বুঝার মত বিবেক বুদ্ধি আমাদের নারী জাতির কি আছে? হবেও কি কোনদিন?
আমি .....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

সহিহ মুসলিম ১ম খন্ড, কিতাবুল ঈমান/ঈমান অধ্যায়, অনুচ্ছেদ ৪৭, হাদিস নং ২০১

লিখেছেন: ' আব্দুল্লাহ আল নোমান' @ বৃহস্পতিবার, মার্চ ১২, ২০১৫ (১০:৫৮ পূর্বাহ্ণ)

আবু যার (রা.) থেকে বর্ণিত নাবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন : আল্লাহ্’তা য়ালা কিয়ামতের দিন তিন শ্রেণীর লোকের সাথে কথা বলবেন না, তাদের দিকে তাকাবেন না এবং তাদেরকে পবিত্রও করবেন না।
.
বরং তাদের জন্য রয়েছে ভয়ানক শাস্তি। বর্ণনাকারী বলেন, রসুল্লাহ্ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এ কথাটি তিন বার পাঠ করলেন।
.
আবু যার (রা.) বলে ওঠলেন, তারা তো ধ্বংস হবে, ক্ষতিগ্রস্থ হবে। হে আল্লাহর রাসূল (সা.) এরা কারা ?
.
রাসূল (সা.) বললেন : যে লোক পায়ের টাখনুর .....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

হানাফী ফতোয়া : সূর্যাস্তের সাথে সাথে ইফতার শুরু না করা মাকরুহ

লিখেছেন: ' Talebul Elm' @ রবিবার, জুন ২৯, ২০১৪ (৬:৫৪ পূর্বাহ্ণ)

MFT Shafi

সালাফী বা আহলে হাদীসদের পক্ষ থেকে হানাফীদের প্রতি একটি অভিযোগ হল, তারা সূর্যাস্তের সাথে সাথে ইফতার করে না। অথচ হানাফী মুফতি শফী (রহ) লিখেছেন : (স্ক্রীন শট)

“ইফতারি : সূর্যাস্ত নিশ্চিত হওয়ার পর ইফতারিতে দেরী করাটা মাকরুহ। অবশ্য যখন মেঘ বা অন্যান্য কারণে সন্দেহ হয়, তখন দুই-চার মিনিটি অপেক্ষা করাটা ভাল। তবে সাবধানতার জন্য তিন মিনিট সবসময় অপেক্ষা করা উচিত।” [জাওয়াহিরুল ফিক্বহ ৩/৫২২ পৃ:]

অপর একজন হানাফী মুফতী মুহাম্মাদ কিফায়াতুল্লাহ দেহলভী (রহ) লিখেছেন :
غروب آفتاب کے بعد وقت افطار شروع .....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>