লগইন রেজিস্ট্রেশন

ওহাবী / সালাফি আলেমদের গুরু সৌদী শিক্ষা মন্ত্রী !

লিখেছেন: ' দেশী৪৩২' @ রবিবার, এপ্রিল ২৯, ২০১২ (৫:০৬ পূর্বাহ্ণ)

saudi Minister of Education:
Prince Faisal Bin Abdullah Bin Muhammad Al-Saud
Born: 1949 in Riyadh
Education: MA in Industrial Engineering, Stanford University, CA, USA; BA in Business Administration, Menlo College in the USA.
Positions Held: Research and Industrial Development Center at the Ministry of Commerce from 1971 to 1973; Undersecretary for the National Guard’s Western Sector 1992 to 2003; Deputy Chief of the General Intelligence 2003-2009; Minister of Education since February 14, 2009.

http://www.moe.gov.sa/news/Pages/nh_6_5_1433_s1.aspx

https://www.google.it/search?q=Prince+Faisal+bin+Abdullah&hl=it&prmd=imvns&tbm=isch&tbo=u&source=univ&sa=X&ei=nnScT7_CB4m1-wb7uJX7Dg&ved=0CCsQsAQ&biw=1137&bih=527

পাঠক মহল চিন্তা করুন এদের তৈরী করা সিলেবাসে পড়া ও এদের মাদ্রাসায় গড়া আলেম দ্বারা ইসলামের কি খেদমত হতে পারে ।তাই দেখা যাচ্ছে এরা ইসলামের মধ্যে ফিতনাই বশী ছড়াচ্ছে পাশ্চাত্যের কুকুর আরব রাজাদের ক্ষমতা আরো পাকাপোক্ত করার জন্য।যদিও আল্লাহ পাক বলেন,”নিশ্চয়ই শয়তানের চক্রান্ত দুর্বল”।
আল্লাহ পাক আমাদের সকলকে এদের গড়া আলেমদের থেকে ও সকল রকম ফিতনা থেকে নিরাপদ রাখুন। আমিন।

Processing your request, Please wait....
  • Print this article!
  • Digg
  • Sphinn
  • del.icio.us
  • Facebook
  • Mixx
  • Google Bookmarks
  • LinkaGoGo
  • MSN Reporter
  • Twitter
২১৯ বার পঠিত
1 Star2 Stars3 Stars4 Stars5 Stars ( ভোট, গড়:০.০০)

৪ টি মন্তব্য

  1. পাঠক মহল চিন্তা করুন এদের গড়া আলেম দ্বারা ইসলামের কি খেদমত হতে পারে ।
    আল্লাহ পাক আমাদের সকলকে এদের গড়া আলেমদের থেকে ও সকল রকম ফিতনা থেকে নিরাপদ রাখুন। আমিন।

    কিন্তু ভাই , বাস্তবে তো উল্টা দেখা যাচ্ছে । এদের গড়া আলেমরাই (মদীনা ইউনিভার্সিটি থেকে পড়া ) কুরআন হাদীসের অনুকুলে কথা বলছে । আর আপনাদের দেশের নিজস্ব তত্ত্বাবধানে (সরকার থেকে খারিজ হওয়া খারেজি – কওমী মাদ্রাসায় পড়া) আলেমরা কুরআন হাদীস বাদ দিয়ে গোঁড়া মাযহাবী ফিকহের অনুকুলে কথা বলছে । কুরআন হাদীস দিয়ে ভুল ধরিয়ে দিতে গেলেও সেদিকে ভ্রুক্ষেপ করছে না । এই ফোরামেই তার প্রমাণ পাবেন এবং সামনেও এই ব্যাপারে অনেক পোস্ট আসবে ইনশা-আল্লাহ ।

    Ahmed

    @ABU TASNEEM,

    ইচ্ছামত চার মায্হাবের যখন যেটি খুশি সেটি অনুসরণ করা সকল ইমামের ঐক্যমতে হারাম বা অবৈধ বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

    (ফাত্ওয়া-ইবনে তাইমিয়্যাঃ পৃ – ২/২৪১ )

    http://alkawsar.com/article/590

    http://www.cometoislam.com/fiqh/legal/main.htm

    আশা করি প্রবন্ধদ্বয় মুক্তমনে পড়লে বুঝে আসবে মিষ্টি কথায় কিভাবে তথাকথিত সালাফীরা উম্মতের মাঝে ফিতনা ছড়াতে ব্যস্ত!
    হযরতে সাহাবা কেরামে (রাঃ) এর যুগ হতেই ফরূয়াতের মাসআলায় ইখতেলাফ চলে আসছে………
    -হযরত ইবনে মাসউদ (রাঃ) নামাযে রফে ইয়াদাইন করতেন না, হযরত আবদুল্লাহ ইবনে উমর (রাঃ) নামাযে রফে ইয়াদাইন করতেন
    – বুখারী শরীফে ও সহীহ ইবনে খুযাইয়মাতে রফে ইয়াদাইন ৩, ৫ , ৭ বার আছে
    – আসরের ওয়াক্ত শুরু কখন উভয় মতেরই সহীহ দলিল আছে যা হানাফী ও শাফেয়ী মাযহাবে বর্ণিত
    – আমীন আস্তে, জোড়ে উভয় মতেরই সহীহ দলিল আছে (http://alkawsar.com/article/384)
    – নামাযে হাত বাধা উভয় মতেরই সহীহ দলিল আছে (http://alkawsar.com/article/479, http://alkawsar.com/article/503)
    …………………………………………………
    ……………………………………………….. ইত্যাদি

    সুতরাং ক্বওমী মাদ্রাসার আলেমরা কুরআন হাদীস বাদ দিয়ে গোঁড়া মাযহাবী ফিকহের অনুকুলে কথা বলছে—- এ কথাটি তারাই বলতে পারে যাদের ইলমে ইলাহী ও ইলমে নবুওয়্যাত সম্বন্ধে ছিটে-ফোটা ধারনা আছে, নতুবা যারা ফিতনাবাজ ।

    হাদীসের সারমর্ম………. আল্লাহ সুবহানু তাআলা উম্মতের মাঝে বিভেদ সৃষ্টিকারীদের ফরয ইবাদতও কবুল করবেন না (কেউ এর উৎস বললে কৃতজ্ঞ থাকব)

    বি দ্রঃ দেওবন্দ মাদ্রাসা দ্বারা আল্লাহ সুবহানু তাআলা খিদমত কবুল না করলে বৃটিশ অধ্যুষিত এই এলাকায় ABU TASNEEM ভাই ও আমাদের পূর্ব পুরুষেরা হয়তো ধূতি পড়ে বন্দে মা-তরম জ্বয়ধ্বনি দিত।

    আল্লাহ সুবহানু তাআলা উম্মতকে এক ও হিদায়াত দেন।
    আমীন

    Anonymous

    @Ahmed, দেওবান্দ আন্দোলন সম্পর্কে একটু বিস্তারিত জানাবেন।

    Anonymous

    @ABU TASNEEM,বুঝা যাচ্ছে না কিছু। আপনার কাছে অতীতে বহুবার মাযহাবের ইমামদের প্রতিষ্ঠিত কোন কথাটি কুরআন হাদীস বিরোধী তার প্রমাণ চেয়েছিলাম। আপনি দেননি বরং অযৈক্তিক আক্রমন করেই চলেছেন।

    একই ভাবে মাদীনা ইউনিভারসিটির সবাই কি মাযহাব বিরোধী? শায়খ ইলিয়াস ফয়সাল দা বা সম্পর্কে কি বলেন?