লগইন রেজিস্ট্রেশন

হিপোক্রেসী।

লিখেছেন: ' ফারুক' @ বুধবার, ডিসেম্বর ৯, ২০০৯ (১:০২ অপরাহ্ণ)

খোলামেলা আমার তথা ‘কোরান ওনলী’ দের বিরদ্ধে ব্লগে প্রচারনা চলছে। চলতেই পারে। আমার মত সকলের পছন্দ হতে হবে এমন মাথার দিব্যি কাউকে দেইনি। কিছু নমুনা-
“কুর’আন অনলি”রা এই যুগের “যিন্দিক” , কিন্তু ফারুক ভাই আমাকে নিরাশ করলেন। মনে হয় ওনার ভান্ডার শেষ, অনেক নাদানরাও এই কোরানকে বুঝতে চেস্টা করবে , ওরা বিচার মানি কিন্তু তালগাছ আমার টাইপের লোক , ইত্যাদি। এতে কোন দোষ নেই।

কিন্ত আমি কোন গোষ্ঠির নাম উল্লেখ না করেও শুধু মাত্র আমার নিজস্ব বুঝের কথা বলার জন্য , ব্যান দাবী করা হচ্ছে। এর থেকে হিপোক্রেসী আর কি হতে পারে?

আমি কোরানে বিশ্বাস করি , এক আল্লাহতে বিশ্বাস করি , মুহম্মদ আল্লাহর রসূল বিশ্বাস করি। হাদীসে বিশ্বাস করি না । আমাকে কি বলবেন? কাফের? যিন্দিক? নাদান? ভন্ড? এই ধরনের নামকরন করা কি ইসলাম শিক্ষা দেয়? রসূলের সেই গল্পের ( সত্য কি মিথ্যা আল্লাহই ভালো জানেন) কথা মনে আছে? এক বুড়ি রসূলকে শারীরিক কষ্ট দেয়ার জন্য পথে কাটা বিছিয়ে রাখত। বুড়ি অসুস্থ হলে রসূল তার সেবা করেছিলেন। এর থেকে কি শিক্ষা আপনারা নিয়েছেন? আপনারা মুখে কি বলছেন , আর কাজে কি করছেন একটু চিন্তা করুন।

Processing your request, Please wait....
  • Print this article!
  • Digg
  • Sphinn
  • del.icio.us
  • Facebook
  • Mixx
  • Google Bookmarks
  • LinkaGoGo
  • MSN Reporter
  • Twitter
১১৭ বার পঠিত
1 Star2 Stars3 Stars4 Stars5 Stars ( ভোট, গড়:০.০০)

৯ টি মন্তব্য

  1. আসসালামু আলাইকুম!

    আপনি হাদীস মানেন না ভাল কথা, হাদীস সম্পর্কে একটি নতুন টোপিক দেয়া হয়েছে, আসুন আমরা এ বিষটি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করি এবং সত্য যাই হওক আমরা তা মেনে নেই, আপনি যদি প্রমানকরতে পারেন হাদীস মিথ্যা তাহলে সর্ব প্রথম আমি আপনার সাথে যোগদান করবো কথ দিলাম। ধন্যবাদ । :)

    ফারুক

    @জ্ঞান পিপাষু,ধন্যবাদ। হাদীস মিথ্যা , এটা যদি এক কথায় প্রমান করা যেত , তাহলে তো ল্যঠা চুকেই যেত। আপনি আমার সাথে যোগদান করলেন কি না করলেন , তাতে আমার ব্যক্তিগত কোন লাভ লোকসান নেই। আমি যেটা সত্য মনে করি আমি সেটাই লিখি। আপনার কাছে সত্য মনে হলে গ্রহন করবেন বা বর্জন করবেন। স্বীদ্ধান্ত আপনার নিজস্ব। এতে আমার কোন দায় দায়িত্ব নেই। আল্লাহ আপনাকে ব্রেন দিয়েছেন সেটা ব্যাবহারের জন্য । অন্ধভাবে কাউকে , এমনকি আমাকেও অনুসরন করার জন্য নয়। পড়তে থাকুন , আমি যা লিখি। তারপরে আপনার স্বীদ্ধান্ত আপনিই নিন। আমারব্লগে ও আমি লিখে থাকি। ইচ্ছা হলে ঘুরে আসতে পারেন। ভালো থাকুন , সুস্থ থাকুন , শান্তিতে থাকুন।

    জ্ঞান পিপাষু

    @ফারুক, আপনি আমার সাথে যোগদান করলেন কি না করলেন , তাতে আমার ব্যক্তিগত কোন লাভ লোকসান নেই।

    ভালো কাজের ফল সব সময় ভালোই হয় আর উপযুক্ত প্রমান ছারা আমি আপনার কথা মেনে নেবোনা কখনই, আর লাভ ক্ষতির ফয়সালা আল্লাহই করে দেবেন । :)

    ফারুক

    @জ্ঞান পিপাষু, ওয়া আলায়কুম সালাম।

  2. ফারুক সাহেব কিছু কিছু ব্লগার আপনাকে নয় আমাকে ফিঙ্গারিং করছেন আপনাকে ডিফেন্ড করাতে। তবে আমি ব্যক্তি ফারুককে ডিফেন্ড করিনাই, আপনি না হয়ে যে কোন নাস্তিকও হয় তাকে আমি ডিফেন্ড করব। কারণ রাসুল সাঃ সুন্নাহ হল- অন্ধকারকে গালী নয় অন্ধকারে আলো জ্বালানো।

    তবে আপনাকে নাদান যিন্দিক বলার যেমন আমি নিন্দা করি তদরূপ আপনার রাসুল সাঃ কে ভয়ানক ভুল দুরুদ কে বোধহীন আবৃতি বলে রাসুল প্রিয় আমাদের মনে আঘাত দেওয়াকেও আমি নিন্দা করি।

    আপনি যদি একজন হিন্দু মানুষের বিশ্বাসের উপরও আঘাত করে কথা বলেন তাতেও আমি নিন্দা জানাব।
    আলোচনার মানে নয় আপনি অশালীন ভাষা ব্যবহার করতে পারেন। আপনি হাদিস মানেন না এটা আপনার বিষয় এর জন্য খাতা আপনার হবে। আপনার সাথে আমার হবেনা।
    তবে আপনার মত আমাকে গিলাতে চেষ্টা করবেনা। আপনি আপনার ওপিনয় রাখতে পারেন তবে তা অবশ্যই সংযত ভাষায় যুক্তির মাধ্যমে। ধন্যবাদ।

    জ্ঞান পিপাষু

    @মর্দে মুমিন, কারণ রাসুল সাঃ সুন্নাহ হল- অন্ধকারকে গালী নয় অন্ধকারে আলো জ্বালানো।

    ভালো বলেছেন, এখন আলো কিভাবে জ্বালাবেন সেটা জ্বালিয়ে দেখাবেন বলে আমারা আশাকরি । ধন্যবাদ।

    মর্দে মুমিন

    @জ্ঞান পিপাষু, আপনি নিশ্চয় ফান করছেন না। আমাদের এই বাংলাদেশে কেমন করে ইসলাম কায়েম হয়েছিল তা নিশ্চয় আপনার জানা আছে? এখানে এই মাটিতে ইসলাম কায়েম হয়েছিল প্রেমের মশাল জ্বালিয়ে ডান্ডা বা তলওয়ার দিয়ে নয়। আমাদের আলো জ্বালতে হবে প্রেম দিয়ে ভালবাসা দিয়ে। এবং এটি করতে পয়সা খরছ লাগেনা। আমাদের দূর্ভাগ্য বিগত দিন থেকে আমরা দুই চরমের দ্বন্দের মধ্যে থেকে ইসলামের অগ্রযাত্রাকে রুদ্ধ করে দিয়েছি। তাদের এক গ্রুপ কোরান হাদিস মানেন কিন্তু ইজতেহাদের দরজা বন্ধ করে দিয়েছেন। আর অন্য গ্রুপ ইউরোপিয় শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে সব কিছুকে ইজতেহাদ করে সব অবৈধকে বৈধ করে নিচ্ছেন। অথচ ইসলাম হল মধ্য পন্থার পথ ও ধর্ম, সে কথা আমরা ভুলে গেছি। ধন্যবাদ।

    ফারুক

    @মর্দে মুমিন, আপনার এই পরমত সহিষ্নুতা কে অভিনন্দন জানাই। ইসলামে জোর জবরদস্তির কোন জায়গা নেই।

    তবে আপনার মত আমাকে গিলাতে চেষ্টা করবেনা।

    আপনি তো অনেকদিন আমার লেখার সাথে পরিচিত। কোথাও কি দেখেছেন আমার মত কাউকে গেলানোর চেষ্টা করতে। বরং আমি সব সময় বলে থাকি , কেউ যদি আমার মতের সাথে একমত হোন , তাহলে তার দায় দায়িত্ব তার নিজের। আমি কোন দায় নেব না। তবে এটা ও বলতে ভুলি না আমি যা সত্য বলে বুঝি ও নিজে পালন করি , সেটাই লিখি। এর ভিতরে কোন শঠতা নেই। আমার শত্রু ও মনে হয় বলতে পারবে না বা দেখাতে পারবে না , আমি শত গালি খাওয়ার পরে ও কাউকে পাল্টা গালি দিয়েছি ।

  3. আমি দোয়া করি আমার আপনার এবং সকল কালেমার ভাই এমনকি আহলে কিতাবা ইয়াহুদ নাসারা এবং কাফের মুশরেকদের জন্য আল্লাহ আমাদের সকলকে হেদায়াত দান করুন হেদায়াতের পথে চলার তৌফিক দান করুন।

    “কুর’আন অনলি”রা এই যুগের “যিন্দিক” , কিন্তু ফারুক ভাই আমাকে নিরাশ করলেন। মনে হয় ওনার ভান্ডার শেষ, অনেক নাদানরাও এই কোরানকে বুঝতে চেস্টা করবে , ওরা বিচার মানি কিন্তু তালগাছ আমার টাইপের লোক , ইত্যাদি। এতে কোন দোষ নেই।

    আপনাকে সুন্দর ব্যবহার করেও বুঝানোর চেষ্টা করা হয়েছে; আমি বলবো মনে করি আপনার চিন্তায় কিছুটা পরিবর্তনও এসেছে আল্লাহ তা আরো বরকতময় করুন এবং আমাদের এসকল কঠোর ভাষার প্রয়োগ থেকে হেদায়াত দানের মাধ্যমে নিস্তার দান করুন।

    একটা সাইন্টিফিক কথা বলি: ডাক্তার রোগীকে প্রথমে ট্যাবলেড-ক্যাপসুল বা বাচ্চাদের সিরাপ খাইয়ে ভালো করতে চেস্টা করেন এবং অনেক ক্ষেত্র তা পালন না করার কঠোর ভয় দেখান । তাতে কাজ না হলে সার্জারী এবং কঠোর নিয়ম-অনাহার ইত্যাদির এ্যাডভাইস করা হয় : আমরা যে ক্ষেত্রে আপনাকে আপনার রোগের উপর প্রতিষ্ঠিত এবং রোগপরিস্থিতির অবনতি দেখেছি তা সার্জারি করতে চেস্টা করেছি যদিও তাতে আপনার গাত্রদাহ বা হৃদয়ত্রাহ সৃষ্টি হল। (F)