লগইন রেজিস্ট্রেশন

রোগ যখন মহামারি আকার ধারণ করে ডাক্তারের ব্যস্ততা তখন বেড়ে যায় ১

লিখেছেন: ' habib008' @ শনিবার, জুলাই ৩০, ২০১১ (৬:৫৭ অপরাহ্ণ)

মুসলমানদের মধ্যে দীন সম্পর্কে অজ্ঞতা, মহামারি আকার ধারণ করেছে বললেও কম বলা হবে । দেখা গেছে অনেক মুসলমান ইসলামের সব চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ফরজ নামাজও পড়তে জানেন না। এমন কি নিয়মিত বা অনিয়মিত যারা নামাজ পড়েন এমন ব্যক্তিদের মধ্যেও অনেকে নামাজের প্রয়োজনীয় সুরা, কেরাত, আত্তাহিয়াতু, দরুদ শরিফ ইত্যাদি জানেন না। ব্যবসা-বাণিজ্য, , মুআশারাত তো অনেক দুরের কথা। এর চেয়ে বড় মহামারি আর কি হতে পারে?
দীন সম্পর্কে এই অজ্ঞতা যখন মহামারির রূপ ধারণ করেছে তখন ডাক্তারের ভূমিকা পালন করতে হবে আপনাকে আমাকে। যারা দীন সম্পর্কে একটু হলেও জানেন তারা তাদের সেই জানাটা নাজানা ব্যক্তিদের কাছে পৌঁছে দেয়া
অবশ্য কর্তব্য। নবী করীম [সঃ] বলেন بلغوا عني ولو آية অর্থাৎ পৌঁছে দাও আমার পক্ষ হতে, যদিও তা এক আয়াত পরিমানও হয়।
আমারা নবী করীম [সঃ] এর উম্মত হিসেবে সেই দায়িত্ত্ব কতটা পালন করছি? আমার/ আপনার আশে পাশে যে মানুষ গুলো আছে, যাদের সাথে আমারা চলা ফেরা করছি খানা পিনা খাচ্ছি তাকে/তাদেরকে নামাজ বা নামাজের দোয়া সুরা ইত্যাদি শিখানোর জন্য কতবার চেষ্টা করেছি? অনেকের উত্তর হবে ‘না করিনাই’ । কেনো করিনাই? আমিও যদি না করি আপনিও যদি না করেন তাহলে কে করবে? আমরাতো আখেরী নবী [সঃ] এর উম্মত। উনার পরে আর কোন নবী আসবেন না। তাহলে সেই দায়িত্ত্ব পালন করতে হবে আমাকে / আপনাকে।
আমি আর আপনি কি শুধু নিজেকে নিয়ে ব্যস্ত থাকলেই জান্নাত পেয়ে যাবো? হাদীসে আছে وعن ابن عمر رضي الله عنهما ، قَالَ : سمعت رَسُول الله، يقول: (( كُلُّكُمْ رَاعٍ ، وَكُلُّكُمْ مسْؤُولٌ عَنْ رَعِيَّتهِ : الإمَامُ رَاعٍ وَمَسْؤولٌ عَنْ رَعِيَّتِهِ ، والرَّجُلُ رَاعٍ في أهْلِهِ وَمَسْؤُولٌ عَنْ رَعِيَّتِهِ ، وَالمَرْأةُ رَاعِيَةٌ في بيْتِ زَوْجِهَا وَمَسْؤُولَةٌ عَنْ رَعِيَّتِهَا ، وَالخَادِمُ رَاعٍ في مَالِ سَيِّدِهِ وَمَسؤُولٌ عَنْ رَعِيَّتِهِ ، فَكُلُّكُمْ رَاعٍ وَمَسْؤُولٌ عَنْ رَعِيَّتِهِ )) مُتَّفَقٌ عَلَيهِ [رواه البخاري: 7/41 ( 5200 ) ، ومسلم 6/7 ( 1829 ) ( 20 )].
ইবনে উমার রাদিয়াল্লাহু ‘আনহুমার বর্ণনা করেছেন। তিনি বলেন: “আমি রাসূলুল্লাহ্ সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়াসাল্লামকে বলতে শুনেছি: তোমাদের প্রত্যেকেই রক্ষণাবেক্ষণকারী(বা দায়িত্বশীল) এবং তোমাদের প্রত্যেকেই তার অধীনস্থদের রক্ষণাবেক্ষণ সম্পর্কে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। পুরুষ তার পরিবার ও সংসারের জন্য দায়িত্বশীল এবং তাকে তার রক্ষণাবেক্ষণ ও দায়িত্বপালন সম্পর্কে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। স্ত্রীলোক তার স্বামীর ঘরের রক্ষণাবেক্ষণকারিনী এবং তাকে সে সম্পর্কে জবাবদিহি করতে হবে। খাদেম তার মনিবের সম্পদের রক্ষণাবেক্ষণকারী এবং তাকে তার সে দায়িত্বপালন সম্পর্কে জবাবদিহি করতে হবে। অতএব তোমাদের প্রত্যেকেই দায়িত্বশীল এবং প্রত্যেককে নিজ নিজ দায়িত্ব পালন সম্পর্কে জবাবদিহি করতে হবে।” [বুখারী: ৭/৪১(৫২০০) ও মুসলিম: ৬/৭(১৮২৯)
আমি বা আপনি নিজের অধিনস্তদেরকে কতবার বলেছি নামাজ পড়ার জন্য? অনেকেই বলিনাই। কেনো বলিনাই? একটু ভেবে দেখা দরকার? আল্লাহ তালা বলেন
. يَا أَيُّهَا الَّذِينَ آمَنُوا قُوا أَنفُسَكُمْ وَأَهْلِيكُمْ نَارًا وَقُودُهَا النَّاسُ وَالْحِجَارَةُ عَلَيْهَا مَلَائِكَةٌ غِلَاظٌ شِدَادٌ لَّا يَعْصُونَ اللَّهَ مَا أَمَرَهُمْ وَيَفْعَلُونَ مَا يُؤْمَرُونَ
হে লোকজন যারা ঈমান এনেছো, তোমরা নিজেদেরকে এবং নিজেদের পরিবার ও সন্তান-সন্তুতিকে সেই আগুন থেকে রক্ষা করো মানুষ এবং পাথর হবে যার জ্বালানী৷ সেখানে রুঢ় স্বভাব ও কঠোর হৃদয় ফেরেশতারা নিয়োজিত থাকবে যারা কখনো আল্লাহর নির্দেশ অমান্য করে না এবং তাদেরকে যে নির্দেশ দেয়া হয় তাই পালন করে
একটু ভেবে দেখা দরকার। লেখাতো অনেক পড়েছি বা লিখেছি। কিন্তু নিজের আমল কতটা ঠিক করেছি? আজকেও যদি নাকরি কালকেও যদি নাকরি তাহলে কখন করবো? কবরে যাওয়ার পরে কিন্তু আমরা আর কোন দিন দুনিয়াতে আসতে পারবোনা। যা আমল করতে হয় মৃত্য আসার আগেই করে নিতে হবে। আর মৃত্য কখন আসবে সেটা আমরা কেও জানিনা। তাই চলুন আজ এখন থেকেই নিজেও আমল ঠিক করি আর আমার আপনার আশে পাশে যারা মুসুলমান আছেন তাদেরকেও বুঝিয়ে শুঝিয়ে সবচেয়ে গুরুত্ত্বপুর্ণ ফরজ নামাজের তাগিদ দেই। সুরা কেরাত দোয়া ইত্যাদি শিখাই। তবে যারা যত টুকু জানি তত টুকুই বলবো । যা জানিনা তা সরাসরি বলে দেবো আমি জানিনা।

Processing your request, Please wait....
  • Print this article!
  • Digg
  • Sphinn
  • del.icio.us
  • Facebook
  • Mixx
  • Google Bookmarks
  • LinkaGoGo
  • MSN Reporter
  • Twitter
৬৮ বার পঠিত
1 Star2 Stars3 Stars4 Stars5 Stars ( ভোট, গড়:০.০০)

৬ টি মন্তব্য

  1. গুরুত্ব পূর্ণ লেখার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। শুকরিয়া (F)

    habib008

    @মুসাফির, আপনাকেও অনেক ধন্যবাদ। (F)

  2. জাযাকাল্লাহ। (Y)

    habib008

    @anamul haq, আল্লাহ তালা আপনার কল্যান করুন ।

    habib008

    @anamul haq, (F)

  3. আল্লাহ তায়ালা আমাদের কে তাঁর রাস্তায় চলার তাওফিক দান করুন। আপনাকে ধন্যবাদ সুন্দর লেখা দেয়ার জন্য।