লগইন রেজিস্ট্রেশন

তৌহিদী জনতা রাস্তায় নেমে আসলে ইসলাম বিদ্বেষী ভারত এ সরকারকে রক্ষা করতে পারবে না , বদর দিবসে গণমিছিল পূর্বসমাবেশে পীর সাহেব চরমোনাই

লিখেছেন: ' এম এম নুর হোসেন' @ মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ২৭, ২০১১ (১১:৪৯ পূর্বাহ্ণ)

স্টাফ রিপোর্টার : ইসলামী আন্দোলনের আমীর মুফতি সৈয়দ মোহাম্মদ রেজাউল করীম পীর সাহেব চরমোনাই বলেছেন, সরকার সংবিধান থেকে আল্লাহর ওপর আস্থা বাদ দিয়ে ইসলাম বিরোধী অবস্থান নিয়েছে। যুগে যুগে যারাই ইসলামের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে তাদের পরিনাম খুবই ভয়াবহ হয়েছে। ইসলাম ও মুসলমানদের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়ায় এ সরকারের পরিণতি নমরুদ ও ফেরাউনের চেয়ে ভয়াবহ হবে। বাংলাদেশের তৌহিদী জনতা রাস্তায় নেমে আসলে ইসলাম বিদ্বেষী ভারত এ সরকারকে রক্ষা করতে পারবে না। গত১৭ রমজান বৃহস্পতিবার ইসলামী আন্দোলনের ঢাকা মহানগর শাখা আয়োজিত ঐতিহাসিক বদর দিবস উপলক্ষে গণমিছিল পূর্বসমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। রাজধানীর পুরানা পল্টন হাউজ বিল্ডিং চত্বরে গণমিছিল পূর্ব এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
সমাবেশে বক্তব্য রাখেন মহাসচিব অধ্যক্ষ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ, সহকারী মহাসচিব মাওলানা আব্দুল হক আজাদ, সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যাপক সৈয়দ বেলায়েত হোসেন, মাওলানা আহমদ আব্দুল কাইয়ুম, মাওলানা আতাউর রহমান আরেফী, মোঃ আবু সাঈদ সিদ্দিকী, মাওলানা এ বি এম জাকারিয়া, অধ্যাপক ফজলুল হক মৃধা, মাওলানা এইচ এম সাইফুল ইসলাম প্রমুখ।
পীর সাহেব চরমোনাই আরো বলেন, সংবিধান থেকে আল্লাহর ওপর পূর্ণ আস্থা ও বিশ্বাস তুলে দিয়ে ধর্মনিরপেক্ষতা প্রতিস্থাপন করে নববই ভাগ ঈমানদার জনতার বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে। তিনি বলেন, ঈমানদার জনতা রক্ত ও জীবন দিয়ে হলেও আল্লাহর ওপর পূর্ণ আস্থা ও বিশ্বাস প্রতিস্থাপন করেই ঘরে ফিরে যাবে। ঈমানদার জনতার ওপর দলীয় সন্ত্রাস ও পুলিশের বর্বরোচিত হামলা, নির্যাতন করে নমরুদ, ফেরাউন, আবু লাহাব-আবু জাহেলের ভূমিকায় নেমেছে। সরকারের জুলুম নির্যাতনের কারণে রমযান মাসেও আমাদের দলীয় নেতাকর্মীরা কারা ভোগ করছে। তিনি অবিলম্বে নেতা-কর্মীদের নিঃশর্ত মুক্তি ও হয়রানি বন্ধের দাবি জানান। তা না হলে দেশবাসীকে সাথে নিয়ে আমরা আরো কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করতে বাধ্য হব। অধ্যক্ষ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ সরকারকে তওবা করে সংশোধন হওয়ার আহবান জানিয়ে বলেন, মুসলমানের দেশে ইসলামবিরোধী, কুরআনবিরোধী সর্বোপরি মুসলমানের সেন্টিমেন্টবিরোধী কর্মকান্ড করে টিকে থাকতে পারবে না। সরকার যেভাবে জুলুম নির্যাতনের পথে অগ্রসর হচ্ছে তাতে সরকারকে করুণ পরিণতি বরণ করতে হবে। সরকার বিরোধী ও ইসলামী দলগুলোর টুটি চেপে ধরছে। বাক-স্বাধীনতা কেড়ে নিয়ে সরকার ক্ষমতায় টিকে থাকতে পারবে না। দেশময় সরকারের বিরুদ্ধে জনরোষ সৃষ্টি হচ্ছে। দলীয় ক্যাডার ও পুলিশ দিয়ে সরকার নিজেদেরকে রক্ষা করতে পারবে না। সভাপতির বক্তব্যে অধ্যাপক মাওলানা এটিএম হেমায়েত উদ্দীন বলেন, সরকার দেশে একদলীয় শাসন ব্যবস্থা কায়েম করতে বিরোধী দলগুলোর ওপর বিশেষ করে ইসলামী আন্দোলনের কণ্ঠ রোধ করতে চায়। সরকার ইসলাম ও মুসলমানের বিরুদ্ধে কর্মকান্ড করে কাদেরকে খুশি করতে চায়? তিনি বলেন, মনমোহন সিং ঈদের পর পরই বাংলাদেশে সফরে আসবে। ঈদের ছুটিতে ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে এনে গোপন চুক্তি করলে দেশবাসী মানবে না। সেই চুক্তি জনতার সামনে প্রকাশ করতে হবে।
সমাবেশ শেষে একটি বিশাল মিছিল হাউজবিল্ডিং থেকে পল্টন মোড় প্রেসক্লাব, হাইকোর্ট ঘুরে পুরানা পল্টনে এসে শেষ হয়। এ সময় মিছিলকারীরা সরকারের ইসলামবিরোধী কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে আল্লাহর ওপর আস্থা নাই-শেখ হাসিনার দরকার নাই, হামলা-মামলা হুলিয়া নিতে হবে তুলিয়া, বদর যুদ্ধের হাতিয়ার গর্জে উঠুক এবার, দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি রোধ কর করতে হবে, ভারতকে ট্রানজিট জীবন দিয়ে রুখবো ইত্যাদি শ্লোগান দিয়ে নগরী প্রকম্পিত করে তোলে।

http://sonarbangladesh.com/blog/mmnourhossain/63851

Processing your request, Please wait....
  • Print this article!
  • Digg
  • Sphinn
  • del.icio.us
  • Facebook
  • Mixx
  • Google Bookmarks
  • LinkaGoGo
  • MSN Reporter
  • Twitter
২০ বার পঠিত
1 Star2 Stars3 Stars4 Stars5 Stars ( ভোট, গড়:০.০০)