লগইন রেজিস্ট্রেশন

২০ রাকাআত তারাবী নামাজ

লিখেছেন: ' হাফিজ' @ শুক্রবার, জুন ১, ২০১৮ (১১:২৭ অপরাহ্ণ)

দলিল ১:
হজরত আব্দুল্লাহ ইবনে আব্বাস (রাঃ) বলেন, – “রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহে ওয়া সাল্লাম রমজান মাসে ২০ রাকাত তারাবীহ এবং বিতর পড়তেন”
(মুসান্নাফে ইবনে আবী শায়বা, ৫/২২৫ হাদিস – ৭৭৭৪)
হাদিসের স্তর – হাসান সহীহ (১)

দলিল ২:
হজরত সায়েব ইবনে ইয়াজিদ (রাঃ) বলেন – “হজরত ওমর (রাঃ) এর যামানায় রমজান মাসে সাহাবীগণ ২০ রাকাত তারাবীহ-র নামাজ আদায় করতেন। আর তারা কোরআন থেকে শত আয়াতের সূরাগুলো তেলাওয়াত করতেন।
(বায়হাকী সুনানে কুবরা, ২/৪৯৬, মুসনাদে আলী ইবনুল জাআদ, হাদিস – ২৮২৫)
.....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

কিভাবে ছোটদের শিক্ষা দিবেন

লিখেছেন: ' হাফিজ' @ বৃহস্পতিবার, মে ৩১, ২০১৮ (১১:১৫ অপরাহ্ণ)

আকবর এলাহাবাদী একজন প্রজ্ঞাবান ভারতীয় কবি ছিলেন। শিক্ষিত ও বিচারক।

তার ছেলে বড়ো হলে তিনি তার বিয়ের ব্যবস্থা করেন। বিয়ের অনুষ্ঠানে অনেককে দাওয়াত করেন এবং ঘোষণা করেন যে আজ তিনি ছেলেকে একটি বিশেষ উপহার দিবেন। উপহারটি তিনি রেপিং পেপার দিয়ে ঢেকে রাখেন। যেহেতু এটি বিয়ের বিশেষ উপহার তাই সবার ধারণা ছিল নিশ্চয়ই এটি অনেক মূল্যবান হবে।

নির্দিষ্ট সময়ে তিনি ছেলেকে বললেন উপহারটি খোলার জন্য। ছেলে উপহার খুলতে লাগলো এবং ভিতরে আর এক স্তর বিশিষ্ট বাক্স দেখলেন। সেটি খোলার পর আবার আর এক .....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

একজন ইহুদি পন্ডিত জায়েদ বিন সানা

লিখেছেন: ' হাফিজ' @ বৃহস্পতিবার, মে ৩১, ২০১৮ (১১:১৪ অপরাহ্ণ)

জায়েদ বিন সানা একজন ইহুদি পন্ডিত ছিল। রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহে ওয়া সাল্লাম (صَلَّى اللّٰهُ عَلَيْهِ وَسَلَّم) তার থেকে কিছু টাকা ধার নিয়েছিলেন। একবার সে এসে টাকা আদায়ের জন্য খুবই খারাপ ব্যবহার করতে লাগলো। এক পর্যায়ে সে রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহে ওয়া সাল্লাম (صَلَّى اللّٰهُ عَلَيْهِ وَسَلَّم) এর গায়ে জড়ানো পবিত্র চাদর মোবারক ধরে সজোরে টান দিলেন এবং বললেন আব্দুল মোত্তালিবের বংশধর হয়েও তুমি পাওনা আদায় করছো না।
হজরত ওমর (রাঃ) তাকে ধমক দিলেন অথচ রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহে ওয়া সাল্লাম (صَلَّى اللّٰهُ .....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

আয়িশা [রাঃ] কি অদৌ নাবালিকা ছিলেন?

লিখেছেন: ' Mahir' @ রবিবার, এপ্রিল ১৫, ২০১৮ (১:৫৬ পূর্বাহ্ণ)

এটা নিয়ে লিখার ইচ্ছা ছিল না। যেসব মুসলিম ব্লগার এটা আলোচনা করেছে, তাদের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ।কিন্তু সবাই একটি গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট উপেক্ষা করে গেছেন।

সাবালিকা মানে কি?

মেয়েরা আজকাল গড়ে ৮ বছরে বয়:সন্ধিতে পৌছায়। girls start puberty between the ages of 8 and 13, but some will start to develop breasts, pubic hair, or body odor before age 8 [লিংক]

এখন বয়:সন্ধির লক্ষণ দেখা দিলেই কি মেয়ে প্রাপ্তবয়স্ক হয়?

বিজ্ঞানের দৃষ্টিতে না। তবে ইসলামের দৃষ্টিতে হ্যা। কেন?

কারন ইসলামের দৃষ্টিতে বয়:সন্ধি হল .....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

যাহের ও বাতেন [পিডিএফ বই]

লিখেছেন: ' Mahir' @ বুধবার, ফেব্রুয়ারি ৭, ২০১৮ (১১:৪৫ অপরাহ্ণ)

zaher o baten

লেখক পরিচিতিঃ প্রফেসর ড. সৈয়দ বদিউজ্জামান ফারুক
অধ্যাপক, পদার্থবিজ্ঞান বিভাগ,
শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, সিলেট।
বিষয়বস্তুঃ অদৃশ্য ও অলৌকিক জগতের অস্তিত্ব আছে। আর এটা বিজ্ঞানের বিরুদ্ধেও যায় না।

সাইজঃ ৮.৪ এম.বি.
পৃষ্ঠাঃ ৩০

.....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

সময় এর মুল্য

লিখেছেন: ' হাফিজ' @ সোমবার, জানুয়ারি ১, ২০১৮ (৭:৫৪ পূর্বাহ্ণ)

এক বাদশাহ তার কর্মচারীকে খেজুর সংগ্রহ করার জন্য নির্দেশ দিল। বাদশাহর অনেকগুলো বাগান আছে। পরপর বাগানগুলো অবস্হিত। এক বাগানের মধ্য দিয়ে অন্য বাগানে যেতে হয়। কিন্তু নিয়ম হোলো, কোনো বাগানে প্রবেশের পর আগের বাগানে যাওয়া যায় না।
কর্মচারীটি ১ম বাগানে প্রবেশ করল এবং বাগানের সৌন্দর্যে অভিভূত হয়ে গেলো। কিছু খেজুর সংগ্রহ করার পর দ্বিতীয় বাগানে গেলো, এবং দেখলো যে আগের বাগানের চেয়ে এই বাগানের খেজুর আরো উত্তম। তাই সে পূর্বের খেজুরগুলো ফেলে দিলো এবং .....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

আলেম কারা এবং প্রকৃত আলেমের পরিচয়

লিখেছেন: ' হাফিজ' @ রবিবার, ডিসেম্বর ৩১, ২০১৭ (১২:৫৯ অপরাহ্ণ)

بِسْمِ اللهِ الرَّحْمٰنِ الرَّحِيْمِ

প্রথমে আমরা দেখবো সাহাবী কারা:
রসুলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহে ওয়া সাল্লাম) এর সংস্পর্শে যারা এসেছেন এবং রসুলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহে ওয়া সাল্লাম) কর্তৃক যারা এজাযত (অনুমুতি) প্রাপ্ত হয়েছেন তারাই সাহাবী। অর্থাৎ শুধু সোহবত বা সংস্পর্শে আসার কারণে সাহাবী হবে না, কেননা আবু জেহেল, আবু লাহাব, আবু তালিব এরাও রসূলের সংস্পর্শে এসেছে কিন্তু সাহাবী হিসেবে রসূল কর্তৃক অনুমোদন** লাভ করেনি।
আবার অনুমোদন আছে কিন্তু সোহবত প্রাপ্ত হয়নি তিনিও সাহাবী হবেন না। যেমন ওয়ায়েস করণী (রহঃ), যিনি রসূল কর্তৃক .....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

পৃথিবী গতিশীল হওয়ার প্রমাণ

লিখেছেন: ' Mahir' @ বুধবার, ডিসেম্বর ২০, ২০১৭ (২:৩৬ পূর্বাহ্ণ)


ইবনে আল-শাতির[১৩৭৫]-এর বুধ গ্রহের আবির্ভাব বিষয়ক মডেল, এখানে তুসি-যুগল ব্যবহার করে এপিসাইকেল দেখানো হয়েছে, ফলে টলেমির ভূকেন্দ্রিক মডেলকে বাদ দেওয়া হয়েছে।

ডেভিড কিং-এর মতে, ইসলামের উত্থানের পর, কিবলা এবং নামাজের সময় নির্ধারণ করার বাধ্যকতা শতাব্দীর পর শতাব্দী ধরে জ্যোতির্বিজ্ঞানে অগ্রগতিতে অনুপ্রাণিত করে।
King, David A. (২০০৫-০৬-৩০)। In Synchrony with the Heavens, Studies in Astronomical Timekeeping and Instrumentation in Medieval Islamic Civilization: The Call of the Muezzin 1। Brill Academic Pub। পৃ: xvii। ISBN 90-04-14188-X। “And it so happens that the .....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

পৃথিবী গোল হওয়ার ইজমা

লিখেছেন: ' Mahir' @ বুধবার, ডিসেম্বর ২০, ২০১৭ (১২:৩৯ পূর্বাহ্ণ)

১১৯৭ হিজরি/১৭৮২-৩ খ্রিস্টাব্দে হাদি ইস্ফাহানির কৃতিত্ব সমেত প্রচলিত গোলাকার গঠনে নির্মিত একটি বৃহৎ ইরানি ব্রাস ভূগোলক, ভূগোলকটিতে নির্দেশক চিহ্ন, ব্যক্তিত্ব ও জ্যোতির্বৈজ্ঞানিক প্রতীকসহ বিস্তারিত বিবরণ খচিত রয়েছে।

অনেকেরই মনে প্রশ্ন জাগে যে, উলামা পৃথিবীর আকৃতি নিয়ে কি বলেছেন? এদেশের নাস্তিকরা একতরফাভাবে শুধু ঐসকল মুফাসসিরদের কথাই উল্লেখ করে থাকে,যারা তাদের ইজতিহাদে সামান্য ভুল করেছেন আর পৃথিবীকে সমতল বলেছেন। বস্তুত, আল্লাহ তা’আলা সরাসরি কুরআন মাজীদে পৃথিবীকে গোল বলেন নি। কারন, আমাদের পিতৃপুরুষরা যেহেতু পৃথিবীকে সমতল ভাবত, সেহেতু হঠাত করেই পৃথিবীকে গোলক বলে দিলে আমাদের পিতৃপুরুষরা হয়তো শয়তানের ধোঁকায় পড়ে ইসলাম ত্যাগ করত, আর আমরা শান্তির ধর্মে জন্ম নেয়ার সৌভাগ্য অর্জন করতে পারতাম না। তাই আল্লাহ রব্বুল আ’লামীন কিছু কৌশল .....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

বনু নাযীরের পাপের ফর্দ

লিখেছেন: ' Mahir' @ মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ৫, ২০১৭ (১০:৪৭ অপরাহ্ণ)

নাস্তিকদের হিরো বনু নাযীরের সততা

রাসূলুল্লাহ (ছাঃ) মদীনায় এসে অন্যদের ন্যায় তাদের সাথেও শান্তি চুক্তি করেন। তাতে বলা ছিল যে, কেউ কারু বিরুদ্ধে যুদ্ধ করবে না।কুরাইশ ও তাদের সহায়তাকারীদের আশ্রয় দেয়া চলবে না।[ইবনে হিশাম ১ম খন্ড ৫০৩-৫০৪ পৃঃ] শত্রুকে সাহায্য করবে না। রক্তমূল্য আদায়ের সময় পরস্পরকে সাহায্য করবে। সকলে রাসূলকে সহযোগিতা করার মাধ্যমে মদীনাকে রক্ষা করবে।

২য় হিজরীর ৫ই যিলহাজ্জ রবিবার। বদর যুদ্ধে লজ্জাকর পরাজয়ে কুরায়েশ নেতা আবু সুফিয়ান শপথ করেছিলেন যে, মুহাম্মাদের সঙ্গে যুদ্ধ করে এর প্রতিশোধ না নেওয়া পর্যন্ত তার .....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>