লগইন রেজিস্ট্রেশন

চাদ ঃঃ অ্যাস্ট্রনমিকাল গণনা নাকি খালি চোখে দেখা নাকি উভয়ই

লিখেছেন: ' shane2k' @ সোমবার, নভেম্বর ২৩, ২০০৯ (৭:৩২ অপরাহ্ণ)

আমি ব্যক্তিগতভাবে উভয়েরই prefer করি যা কিনা এখনও কেউ অনুসরণ করছেন না। আমরা কেবল খালি চোখে আর নয়তবা শুধু calculation করে পালন করছি বা এক দেশে দেখা গেলে অন্য দেশে পালন করছি। অথচ technology-এর কারণে আমরা calculation-এর দ্বারা সময় নির্ধারণ করে satellite দ্বারা দেখতে পারি নতুন চাঁদ উঠেছে কিনা। এতে আমাদের সুন্নাহ্‌ও পালন হলো সাথে আল্লাহ্‌র creation-এর সত্যটিকেও আমরা জানতে পারলাম।

Point 1 :: আমরা আজ কি করছি ?

- আমরা আজ calculation করে কেবলা নির্ধারণ করছি
- আমরা আজ calculation করে সূর্যোদয় এবং সূর্যাস্ত নির্ধারণ করছি
- আমরা আজ calculation করে আগে থেকেই নামাজের সময় নির্ধারণ করছি
- আমরা আজ calculation-এর কারণে দিক নির্ধারণ করছি এবং এই কারণে Saudi-তে চাঁদ দেখা গেলেও নিজ দেশে না দেখা যাওয়া পর্যন্ত হিজরী মাস স্থির করিনা

ইতিহাস পর্যালোচনা করলে দেখা যাবে

- Limited knowledge of the time
- নতুন information-কে সহসা গ্রহণ না করার বা নিজের গণ্ডি থেকে না বেরিয়ে আসার প্রবনতা

উপরের উল্লিখিত কারণে আমাদের সময় লেগেছে কিন্তু আল্লাহ্‌র creation-এর সত্যকে অবশেষে আমরা গ্রহণ করেছি।

Point 2 :: সূর্য ও চাঁদ দেখা

- যে চশমা পরে চাঁদ দেখবে, তার দেখাকে আমরা কি বলব বা আমরা কি তার দেখাকে গণ্য করব না ?
- চশমা পরা ব্যক্তির চাঁদ দেখা যদি গণ্য হয় তবে Science-এর সঙ্গা মতে চশমা এবং Telescope-এর কোন difference কি আছে ?
- সূর্য প্রতিনিয়ত নির্দিষ্ট সময়ে উঠে, একই ভাবে চাঁদ তার নির্দিষ্ট নিয়ম মত চলে। এদের নিয়মে যে কোন হেরফের নেই তা আল্লাহ্‌ কোর্‌আনে বলেছেন।
- আমাদের মাথার উপর নতুন চাঁদ যদি উঠে থাকে, যার মানে হলো সূর্যের আলো চাঁদের উপর, তাহলে পৃথিবীর আবহাওয়া জন্য যদি আমরা দেখতে না পাই কিন্তু প্রযুক্তির কারণে আমরা জেনেও যদি অস্বীকার করি চাঁদ উঠে নাই, তবে তার মানে কি এই দাঁড়াল না, যে আমরা আল্লাহ্‌র সত্য যেনেও স্বীকার করলাম না?
- আপনার এলাকায় যদি মাগ্‌রেবের আজান দেয় তবে সেই একি এলাকায় ৩০ বা ৪০ বা ৫০ তলা বিশিষ্ট building-এর লোকেরা কি সেই একই আজান অনুসরণ করবে ? কেননা মনে রাখবেন উচ্চতার কারণে তাদের জন্য কিন্তু তখনও সূর্যাস্ত হয়নি এবং আমাদের নামাজের নিয়ম সূর্যের অবস্থানের উপর নির্ভরশীল।

এটা কোন analogy, ইজতিহাদ, ইজমা এবং কিয়াছের মাঝে পরল ?

যাই হোক, নিচের লিঙ্কটি ধীরে মনযগ সহকারে পরেন এবং চলেন গঠন মুলক ভাবে একজন আরেকজনের brain picking করি।

The Astronomical Calculations and Ramadan :: A Fiqhi Discourse – By Dr. Zulfiqar Ali Shah

Processing your request, Please wait....
  • Print this article!
  • Digg
  • Sphinn
  • del.icio.us
  • Facebook
  • Mixx
  • Google Bookmarks
  • LinkaGoGo
  • MSN Reporter
  • Twitter
৩২০ বার পঠিত
1 Star2 Stars3 Stars4 Stars5 Stars ( ভোট, গড়:০.০০)

১৯ টি মন্তব্য

  1. আমার পোস্টটি দেখুন
    আপনার বক্তব্য ছিল”
    আপনি তাহলে আমাকে বলছেন যখন আমি জানছি মহাশূন্যে ঠিক আমার মাথার উপর যখন চাঁদ উঠেছে আমি সেই চাঁদকে অস্বীকার করবো কারণ মেঘ, আলো ও পরিবেশের কারণে আমি নিজ চোখে তা দেখতে পাইনি। ঘটনা দাঁড়াল, মেঘের কারণে সূর্য দেখতে পাবনা বলে আমি দিন ও ওয়াক্ত মানবনা। আধুনিক মাধ্যমে যেহেতু আমি চাঁদ দেখতে পাব তবে কেন আমি জেনে মোহানা আল্লাহ্‌র সত্যকে অস্বীকার করবো ?

    আমার কথা হল:চাদঁ যেভাবেই দেখুন চোখে দেখতে হবে- টেলিস্কোপ-দুরবীন- স্যাটেলাইটের সাহায্য নেয়া চোখেঁ দেখার চেয়ে ব্যতিক্রম নয় কি? আর যদি ধরে নেয়া যায় যে এসব উপকরনের সাহায্যে চাদঁ দেখাও চোখে দেখার সমান, তবে সৌদি আরবও এসব উপকরনের উপর আস্থাশীল হয়ে চাদঁ দেখে নিতে পারে এবং চাদঁ দেখার জন্য অবশ্যই বৈজ্ঞানিক সরঞ্জাম ব্যবহার করে। আমার কথা হল এ্যাস্ট্রোলজি যেখানে ছক কেটে বলে দিচ্ছে এ মাসের এত তারিখ চাদঁ উঠবে সে ক্ষেত্রে আপনি সেই ছক কাটা বৈজ্ঞানিক হিসাবের উপর আরবী মাসের গননা করতে পারেন না, কারন হাদিস হল ” তোমরা চাদঁ দেখে রোজা রাখ এবং চাদঁ দেখে তা ভংঙ্গ কর” দেখার উপকরণ এবং ব্যাবস্থাপনার বৈজ্ঞানিক সরঞ্জাম নিয়ে কথা হচ্ছে না বরং বৈজ্ঞানিরা বিশেষত এস্ট্রোলজিতে যে ছক আছে তদনুযায়ি চাদের হিসাব ধরে নেয়া ব্যাপরটি এক নয়।
    আশা করি পরিস্কার ।

    আপনি আরো বলছেন:
    - এক দিকে আল্লাহ কালাম নিয়ে তাতে বর্ণিত সৃষ্টির ও বিজ্ঞানের মিল নির্ণয় করবেন অপর দিকে বিজ্ঞানের মাধ্যমে সেই সৃষ্টিকে যখন আরো ভালো করে জানবেন তা গ্রহণ করবেন না তাতো হয়না-

    আমার কথা হলো:বিজ্ঞানের মাধ্যমে এক সময় জেনেছি পৃথীবি ঘুরে আবার জেনেছি সূর্য্য ঘুরে আবার জেনেছি উভয়টাই ঘুরে, এ ক্ষেত্রে একটির উপরই যদি ডিপেন্ড করি তাহলে আরেকটিকে মিথ্যা বলা হবে। এধরনের বিষয়কে আমরা শরিয়তের স্পষ্ট দলিলের ক্ষেত্রে পেশ করতে পারি না, কারন গবেষণা করে একটা বিষয়ের আবছা ধারণা আমরা পাই পরবর্তিতে তার ব্যাপারে আরো পরিষ্কার কিংবা আগের ধারণার ভূল পাই। অতএব, শরয়ী মাসলার ক্ষেত্রে পরিস্কার এবং একেবারেই নির্ভূল চাক্ষুষ প্রমান প্রয়োজন। যেমন দেখুন ” বেলাল রযি ছাড়া আরো এক সাহাবী আযান দিতেন, সেই আযান ছিল তাহাজ্জুদের, কেউ একজন রসূল স: এর সেহেরীগ্রহনের সময় খবর দিল সুবহে সাদিক হয়ে গেছে, তিনি হাসতে হাসতে খাবার খেয়েই চল্লেন। এবং বল্লেন সে সুবহে সাদিকের আগেই আযান দেয়।” অনুরুপ বিজ্ঞান যেখানে ভুল ও শুদ্ধ উভয় প্রকার তথ্য পরিবেশন করে – বিষয়টি আপনিও মানবেন- সেখানে এরুপ দ্বীমুখি বৈজ্ঞানিক তথ্যের উপর ভিত্তি না করে পরিস্কার প্রমানের উপর নির্ভর করে আমল করতে হবে।
    চাদেঁর মাসলায় শরীয়াত যেখানে তা দেখার কথা বলছে, বৈজ্ঞানিক দেখাকে আমি অস্বীকার করছি না, আর এ খবরও বা আমাদের কে দিচ্ছে যে সৌদি আরব হেলিকপ্টার বা প্রযুক্তি ব্যাবহার করে না?! তারা যেভাবেই হোক চক্ষু দর্শনের পরেই চাদেঁর হিসাব নির্ধারণ করবে যেমনটি হাদিসে বলা হয়েছে।
    চাদেঁর হিসাবে ছককাটা বিজ্ঞান-তথ্য শরীয়তের প্রমান নয়, তাহলে হাদীস ছেড়ে বিজ্ঞানের ছক কাটা হিসাব অনুযায়ী আমল করতে থাকুন। অথচ সেই হিসাব আল্লাহর নিয়ন্ত্রিত এবং তার নিয়ত্রনে তিনি পরিবর্থন আনতে পারেন, এনেছেন কিনা তা দেখার জন্যই চাদঁ দেখে রোজা- হজ্বের হিসাব করতে বলছেন।
    তারকা বিশারদদের পূথিঁগত গবেষণার চাইতে ইসলাম চাদেঁর গবেষণায় আরেকধাপ এগিয়ে রয়েছে। এবং এটাই মুলথ আরো বেশি বৈজ্ঞানিক যে, আমরা পূথির চেয়ে প্র্যাকটিকল হিসাব করবো।

    shane2k

    @বাংলা মৌলভী,

    You have just pasted your comment from another article without even going through my article and reading the information given in my link.

    Please read it and point out from that where it does not make sense ?

    Even in this very comment you have not pointed out the facts of this article where you found contradiction and therefore until shown otherwise what I have said in this article remains valid.

    বাংলা মৌলভী

    @shane2k, if don`t Trust on It can Del. iv Narrate you Replay and Discus about your Last Comment on my Post When you Asking me about Astrological Researches of Western Scientist. Do you Depend on Their News to apply you worship ? or have to Care on Studies of Scholars of Muslim leaders?

    shane2k

    @বাংলা মৌলভী,

    I have expressed an opinion with some relevant facts.

    I am open minded, so if you feel you can correct me and see my wrongs please do so.

    If you do not know how to prove me wrong then lets not start a pointless arguement by making vague comments about who will “I follow Imams or Kafers”.

    Even to follow my Imams I need some common sense to know what they are saying is true not false or confusion. Without such knowledge even you cannot accept such opinions. If you want follow blindly that is your prerogative but not mine.

    The whole muslim world calculates the direction of Mecca to pray and yet all the 4 great Imams of Islam opposed that, yet now we all without any doubt and question calculate Mecca direction with respect to our current location and pray, why is that ? That is not out of sheer ignorance, arrogance or some sort of weird passion towards my Kafer friends or scientists, it is because of more knowledge.

    ABOVE ALL, lets now forget, you are infact using Kafers invention of Internet and technology to do this blog, how is that permissible ? Well, there is no question of permissibility here and that you or we know because of greater understanding of FACTS not blind belief.

    I understand your passion towards Islam and I also get it that you are way more versed on Islamic Literature than me but I sincerely feel that you lag on Islamic Analogy.

    Lets stick to the point of the article and you have not yet talked on that or else forgive me as I am not willing to comment further since it will not be constructive and will not let me learn anything more, rather it would get me involved in a pointless arguement.

  2. সালাম ভাই, আপনি চাঁদ এর উপর যা লিখেছেন তার সাথে আমি ১০০ ভাগ একমত, আমিও এই ভাবে ভাবি। আমাদের দুনিয়া জুড়ে অনৈক্য আর ঐ সব কিছু আসতেছে তথাকথিত তাক্কালিদ পন্থীদের কাছ থেকে, আপনি ঠিক বলেছেন- ১.Limited knowledge of the time
    ২. নতুন information-কে সহসা গ্রহণ না করার বা নিজের গণ্ডি থেকে না বেরিয়ে আসার প্রবনতা

    এই ২নং কারন আমাদের সর্ব ক্ষেত্রে টেনে পিছনে ফেলে দিচ্ছে।

    আপনাকে আমি খুব ফীল করি, খুব মিস করি, এই পিস ইন ইসলামে আপনার মত উন্নত চিন্তার নবীন মর্দে-মুজাহিদদের বড়ই প্রয়োজন। আপনি এবং আপনার মত চিন্তাশীল মনোভাব সম্পন্ন বন্ধুদের এখানে সময় দেওয়া ওয়াজিব বলে মনে করি। আল্লাহ আপনাকে উত্তম প্রতিদান দান করুন।

    হাফিজ

    @মর্দে মুমিন,

    দুনিয়া জুড়ে অনৈক্য আর ঐ সব কিছু আসতেছে তথাকথিত তাক্কালিদ পন্থীদের কাছ থেকে,
    মর্দে মুমিন, আমার মনে হয় ব্যাপারটা ঠিক উল্টো , আর তা হলো আমারা নিজেরাই আমাদেরকে অনেক বেশী যোগ্য মনে করি । আমরা শুধু আলেমদের দোষ দিই , কিন্তু একবারো ভেবে দেখি না আমাদের যোগ্যতা কতটুকু, ফতোয়া দেবার মতো আমাদের যোগ্যতা আছে কিনা ?
    কোরানের উসুল, হাদিসের উসুল, ফেকার গ্রামার এইসব বিষয়ে আমাদের যোগ্যতা আছে কিনা ? আমরা ডাক্তার না হয়ে ডাক্তারি শুরু করে দিয়েছি ।

    যারা সারাদিন ইসলাম নিয়ে গবেষনা করে তাদের মতামতকে আমরা মুল্য দিই না , আমরা কি চাদ বিষয়ে আর সব স্কলারদের মতকে বিবেচনা করে দেখেছি ? নাকি আমার যেটা পছন্দ সেটাই বলে বেরাচ্ছি ?

    তথাকথিত তাক্কালিদ পন্থীদের

    আপনি কি সমস্ত “তাক্কালিদ পন্থীদের” বুঝাচ্ছেন নাকি নির্দিষ্ট কাউকে ?

    বাংলা মৌলভী

    @হাফিজ,কোন ব্যাক্তিই তাক্বলীদের বাইরে নয়, এমনকি যারা তাক্বলীদ কে অস্বীকার করেন তারা তাদের মুরুব্বীদের কথা কোড করেন । যেমন উনি শেখ কারজাভীর তাক্বলীদ করেন। এবার শেখ কারযাভী আজহারী এবং আমাদের তাক্বলীদকৃত ব্যক্তিদের যোগ্যতা বিশ্লেষণ ওনার হাতেই সোপর্দ করুন।

    মর্দে মুমিন

    @হাফিজ, তাহলে আপনারা এই ব্লগে যোগ্য ব্যক্তিদেরকে নিয়ে আসুন তাহলে ওদের কাছ থেকে শুধু জেনে নেব। কোন অপিনিয়ন জানাব না। আর এটিও আপনাদের ব্লগের নীতি মালায় সংযোজন করুন।

    হাফিজ

    @মর্দে মুমিন, আপনি ওপিনিয়ন জানাতে পারেন, অপিনিয়ন জানাতে গেলে যোগ্যতার প্রয়োজন হয় না । কিন্তু আমার বক্তব্য হলো যোগ্য ব্যক্তিদের ওপিনিয়নই আমাদের গ্রহন করা উচিত ।

    তাইতো “ফতোয়ার” ব্যাপারে আমাদের যোগ্যতা নাই দেখে আমি সবসময় রেফারেন্স দেই , যাদের যোগ্যতা আছে তাদেরটা উল্লেখ করি ।

    আপনি নিশ্চয়ই স্বীকার করবেন এটাই সঠিক পন্হা । যোগ্য ব্যক্তিদের মতামতকে প্রাধান্য দেয়া ।

  3. আমরা আজ calculation করে কেবলা নির্ধারণ করছি
    - আমরা আজ calculation করে সূর্যোদয় এবং সূর্যাস্ত নির্ধারণ করছি
    - আমরা আজ calculation করে আগে থেকেই নামাজের সময় নির্ধারণ করছি

    ক্যালকুলেশনটা আপনি আমি করি ক্যালেন্ডার দেখে আর পৃথীবিত ৮টির মতো বোর্ড আছে যারা এই ক্যালেন্ডার গুলো তৈরি করেছে প্রকৃতি দেখে। সো মাইন্ড অফ।

    - Limited knowledge of the time
    - নতুন information-কে সহসা গ্রহণ না করার বা নিজের গণ্ডি থেকে না বেরিয়ে আসার প্রবনতা

    এই লিমিটেশন সর্বসাধরনের এবং সেই সব শিক্ষিত ব্যক্তিদের যারা আলেম সমাজকে মধ্যযূগীয় মনে করে। আপনার জ্ঞান কেবল ইংরেজির সাইন্সে আর আলেমদের জ্ঞান সেই সাইন্সের জনক আরবীদের ভাষয়। পক্ষান্তরে শরীয়ত কি বলে তার জ্ঞান বা দলিল আপনার কাছে মোটেই নেই যা আলেমদের আছে শতভাগ। সো মাইন্ড অফ

    এবার পশ্চ্যাত্যের ষড়যন্ত্রমুলক প্রচারনার শিকার হয়ে আপনি যদি আপানার ধর্মে কর্মে ওয়াসওয়াসার শিকার হন সেটা একান্তই আপনার কাধে। আলেম ওলামাদের ঘাড়েঁ নয়। আমাদের পাশ্চত্যমুখী শিক্ষিত সমাজের এটাই সমস্যা যে তারা আলেম ওলামা এবং ধর্মীয় স্কলারদের কথার চেয়ে পাশ্চাত্যের বিজ্ঞানীদের কথার বেশী মূল্য দেন। আল্লাহ হেদায়াত দান করুন।

    বাংলা মৌলভী

    @বাংলা মৌলভী,দুরবীন, টেলিস্কোপ এগুলো ব্যাবহার করে বোর্ডগুলোও চাদ দেখে, কিন্তু স্যাটেলাইট যা মহাকাশের কোন এক জায়গায় স্থাপন করা হয়েছে, আমরা কি সেখানে অবস্থান করছি ? যে সেখানের দেখা চাদ নিয়ে আমাদের অবস্থান থেকে হজ্ব পালন করবো কিংবা নামাজ রোজা করবো?>!!!! (N)

    shane2k

    @বাংলা মৌলভী,

    টেলিস্কোপ এগুলো ব্যাবহার করে বোর্ডগুলোও চাদ দেখে

    How is that you are willing to accept this outcome and wash out my saying when I mentioned that there are overn 5 obeservatories all around the world that only monitors every possible action and relation between Earth and Moon. Let me also remind you, the very boards that you are referring to also relies on these observatories, so lets not jump into relying on Kafers and Muslims.

    http://moonsighting.com/

    Now I understand the limitation of you understanding from the comment ” কিন্তু স্যাটেলাইট যা মহাকাশের কোন এক জায়গায় স্থাপন করা হয়েছে, আমরা কি সেখানে অবস্থান করছি ?”... therefore I accept you point not to accept the outcome from the results of sattalite since you have done the best of your analogy based on all the information you have.

    হাফিজ

    @বাংলা মৌলভী, আপনার মনে হয় আর একটু সহনশীল হওয়া উচিত, আমরা কিন্তু এমন আশা করতে পারি না একজন শুধু আমার মত অনুযায়ী মত দিবে ব্লগে ।

    shane2k

    @বাংলা মৌলভী,

    এই লিমিটেশন সর্বসাধরনের এবং সেই সব শিক্ষিত ব্যক্তিদের যারা আলেম সমাজকে মধ্যযূগীয় মনে করে।

    Not sure where this was expressed in my article or in the link that I gave. There may be some who does do that but I did not in my article. You made this comment out of prejudice and stereotype mentality.

    আপনার জ্ঞান কেবল ইংরেজির সাইন্সে আর আলেমদের জ্ঞান সেই সাইন্সের জনক আরবীদের ভাষয়। পক্ষান্তরে শরীয়ত কি বলে তার জ্ঞান বা দলিল আপনার কাছে মোটেই নেই যা আলেমদের আছে শতভাগ।

    Brother let me point out, If I am to agree with you about my passion for Science rather than the Respected Scholars of Islam, then I am doing a far better job representing facts instead of blindly saying with emotion that it is only Science. You on the other hand is telling me Scholars are right, Scholars are right but not giving the facts and not showing WHY scholars are right.

    I am still pointing out you HAVE NOT read the LINK that I have given in my article.

    My article before the link is my opinion based on what I have dervied after reading enough related to this topic. And in support of my position I have given a link to facts.

    IF YOU think the facts in the links are incomplete and analogy is not sound, please do point out.

    If you are not willing to do so, then there is nothing else for you to add as I do not see what to learn from you. So far you have only expressed emotion rather than giving me some information to change my mind.

    And brother, your attitude in the commentory is really poor. I sincerely hope you are sitting in Bangladesh not in a western country becuase if this is the face you are to show to a non-muslim you will only shoo them out rather than inviting them towards Islam. Show some patience and Hikma in your expression.

    So far I have not poked you though I do not tend to agree with you. You on the other hand seems not willing to engage in a constructive discussion but enforce emotion and somehow think I will get convinced.

    May Allah Give me more Patience and Hikma.

    বাংলা মৌলভী

    @shane2k, আমি ইংরেজী কম বুঝি, অনুগ্রহ করে বাংলায় লিখুন। (F)

  4. @ shane2k ,
    ব্রাদার আমাদের নিজস্ব মতামতের সাথে এটাও বিচার করা উচিত না , আলেমরা এ নিয়ে কতটুকু গবেষনা করেছেন ? কোরানে কি আছে , হাদিসে কি আছে ? সাহাবীরা এ সম্বন্ধে কতটুকু বলে গেছেন ?

    এসব কোনোটা বিচার না করে , এক ধাপে আমার কি কি মনে হয় এটাতে যাওয়া কতটুকু সংযত ?

    shane2k

    @হাফিজ,

    I completely agree with you.

    It seems no one has actually read my article and yet commenting on it with full of emotion.

    My article is not based on what I think rather what I think after reading the analogy of both sides, then made on comment on the side I find more relevant.

    I again invite you to read the full article in the given link.

    হাফিজ

    @shane2k, অবশ্যই সময় করে পড়ব , এখন এত ব্যস্ত আছি তাই চাদের এই বিষয় নিয়ে পড়তে পারছি না । তাই “চাদ” বিষয়ক কোনো কমেন্ট করছি না ।

    shane2k

    @হাফিজ,

    Shukran. Regards to you and your family and please relay my best wishes to the group.