লগইন রেজিস্ট্রেশন

তিন তালাকের শরয়ী বিধান

লিখেছেন: ' মুনিস মোর্শেদ' @ সোমবার, অক্টোবর ১২, ২০০৯ (৩:২৯ পূর্বাহ্ণ)

প্রশ্ন: একসাথে তিন তালাক দিলে তালাক হয়ে যাবে কিনা ? অনেকে বলে থাকেন একসাথে তিন তালাক দিলে এক তালাক হবে , কথাটা কতটুকু সত্য ?

উত্তর:
আল্লাহ রব্বুল আলামিন কোরআন শরীফে উল্লেখ করেছেন:
“অত:পর সে যদি স্ত্রীকে (তিন) তালাক দেয় তবে সে স্ত্রি যে পর্যন্ত তাকে ছাড়া অপর কোনো স্বামীর সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ না হয় তার জন্য হালাল নয়। অর্থ্যাৎ, দ্বিতীয় স্বামী বিবাহ করে তালাক না দেয়া পর্যন্ত প্রথম স্বামী গ্রহন করতে পারবে না । ” ( সুরা বাকারা ২৩০ )
এ আয়াত শরীফের ব্যাখ্যায় তফসীরে কুরতুবী, আহকামুল কোরান , রুহুল মা’আনী , মাজহারী প্রভৃতি তাফসীরের কিতাবে উল্লেখ করা হয়েছে এক সংগে তিন তালাক দিলে তিন তালাকই কার্যকর হবে । তিন তালাক প্রাপ্তা স্ত্রি পরবর্তিতে অন্য কোন জায়গায় বিয়ে হবার পর সেই স্বামি যদি তাকে পুনরায় তালাক দেয় তখন প্রথম স্বামির সাথে সে পুনরায় বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হতে পারবে ।

মুলত: এক মজলিশে তিন তালাক দিলে , তিন তালাক হবে । এটা হানাফি , শাফেয়ী , মালেকি , হাম্বলী তথা আহলে সুন্নত ওয়াল জামাআতের সকলে আলেমের মত । শুধুমাত্র বিদাআত মতাবলম্বি দল একে এক তালাক হিসেবে মত দিয়ে থাকে ।
তাবরানী ইবনে ওমর (রা:) এর একটি হাদিস বর্ননা করেন যা নিম্নরূপ :
“আমি বললাম ইয়া রসুলুল্লাহ ( সাল্লাল্লাহু আলাইয়ে ওয়া সাল্লাম ) আমি যদি তাকে তিন তালাক দিতাম , তবে কি আমি তাকে ফিরিয়ে আনতে পারতাম ? রসুলুল্লাহ ( সাল্লাল্লাহু আলাইয়ে ওয়া সাল্লাম ) বললেন “তখন সে তোমার থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যেতো এবং এটা তোমার জন্য হতো গোনাহের কাজ” ।
উপরে একটি হাদিস উল্লেখ করা হলো, এছাড়া সুনানে নাসাঈ, বায়হাকী শরীফ , মুজামে তাবরানী , সুনানে দারে কুতুনী , মুসান্নাফে আব্দুর রাজ্জাক , মুয়াত্তা ইমাম মালেক প্রভৃতি গ্রন্হে অসংখ্য হাদীস শরীফ বিদ্যমান যার দ্বারা প্রমান হয় তিন তালাক দিলে তিন তালাকই কার্যকর হয় ।

Processing your request, Please wait....
  • Print this article!
  • Digg
  • Sphinn
  • del.icio.us
  • Facebook
  • Mixx
  • Google Bookmarks
  • LinkaGoGo
  • MSN Reporter
  • Twitter
২,৬৮৬ বার পঠিত
1 Star2 Stars3 Stars4 Stars5 Stars (ভোট, গড়: ৪.০০)

১৪ টি মন্তব্য

  1. মুলত: এক মজলিশে তিন তালাক দিলে , তিন তালাক হবে । এটা হানাফি , শাফেয়ী , মালেকি , হাম্বলী তথা আহলে সুন্নত ওয়াল জামাআতের সকলে আলেমের মত ।

    অর্থাৎ চার মাযহাব-ই এটাকে সমর্থন করে? কিছু মনে করবেন না। আমি বুঝতেছি, তারপরও আর একবার জিজ্ঞেস করছি।
    এটা একটা সময়োপযোগী পোষ্ট। (Y)
    ধন্যবাদ।

  2. আপনি হযরত ওমর রাঃ এর প্রচলিত আইনের কথা বলছেন। আর ঐ সব উল্লেখিত কিতাবের লেখক গণ ওমর রাঃ আইন এর উপর ভিত্তি করেই লিখেছেন। রাসুল সাঃ বা হযরত আবুব্কর রাঃ জামানার কোন দলিল দেখান এক বৈঠকে তিন তালাককে ওরা বৈধ বলে অবহিত করেছেন? ২. হযরত ওমর রাঃ ছেলের বৌএর তলাকের জবাবে রাসুল সাঃ কি বলছিলেন? ৩. কেউ যদি একসাথে এক টাকার তিনটি আপনাকে একবারে দেয় তা কয় বার হইব? একবার না তিন বার? ৪. আরব দুনিয়ায় এই সাজান হিল্লা প্রথা নেই কেন? আর পোষ্টে আমি বলেছি যে প্রয়োজনে এক সাথে তিন তালাক দেওয়া যাবে। তার মানে নয় যে ইচ্ছা করবেন আর বিনা কারনে তিন তালাক দিতে ইসলাম অনুমতি দিয়েছে। ধন্যবাদ।

    হাফিজ

    আর পোষ্টে আমি বলেছি যে প্রয়োজনে এক সাথে তিন তালাক দেওয়া যাবে।

    তাহলে আপনার আর তার কথা তো একই , বিরোধটা কোথায় ?

    আর পোষ্টে আমি বলেছি যে প্রয়োজনে এক সাথে তিন তালাক দেওয়া যাবে। তার মানে নয় যে ইচ্ছা করবেন আর বিনা কারনে তিন তালাক দিতে ইসলাম অনুমতি দিয়েছে। ধন্যবাদ।

    এবিষয়ে উনি কিছুই বলেন নাই , সুতরাং প্রসংগটা অবান্তর ।

    মর্দে মুমিন

    এখানে পয়েন্ট আছে। উনার বক্তব্য পড়লে মানুষ বিভ্রান্ত হবার শংকা আছে। যে আল্লাহ পুরুষকে একচেটিয়া অধিকার দিয়ে রেখেছেন যখন ইচ্ছা তখন বৌকে তালাক দেবার। আর আমি বলছি সেই অর্থে- ইসলামী আইনের মধ্যে তালাকই হলো সর্ব নিকৃষ্ট পন্থা যা একান্ত বাধ্য/প্রয়োজন না হলে প্রয়োগ করা ঠিক নয়। তাছাড়া এই পোষ্টটা উপলক্ষ্য আমার হিল্লা পোষ্ট। লেখক সুকৌশলে হিল্লা ইসলামে বৈধ কিনা তা এড়িয়ে গেছেন। তার মানে এটাও হতে পারে যে উনি হিল্লাকেই নিরবে সমর্থন দিয়ে আজেন। আমার কথা হল সাজান নাটক হিল্লা যদি ইসলামের দৃষ্টিতে বৈধ তার পক্ষে যুক্তি তুলে দেখালে বড়ই উপকৃত হতাম। ধন্যবাদ।

    Malcolm X

    এখানে প্রশ্ন হলো এক বসাতে তিন তালাক দিলে তিন তালাক বৈধ কিনা । অন্য এত প্রসংগ “হিলা” , “তালাক দেয়া ঠিক কিনা” এগুলো এখানে লেখক আলাপ করে নাই । সুতরাং এত প্রসংগ এক সাথে আলাপ করা মানে কোনোটাই স্পষ্ট হওয়া নয় । বিশেষ করে আমার শুধু একটাই প্রশ্ন “এক বসাতে তিন তালাক দিলে তালাক বৈধ হবে কিনা ? ” এটা খারাপ না ভালো সেটা আমি জিজ্ঞেস করছি না , কেননা এটা ইসলামে স্পষ্ট বলা আছে যে “হালাল সমস্ত জিনিসের মধ্যে তালাক আল্লাহ তাআলার নিকট সবচেয়ে অপছন্দনীয়” ।

    সুতরাং তালাক যে ভালো না এটা স্পষ্ট , কিন্তু প্রশ্ন “এক বসাতে তিন তালাক দিলে তালাক বৈধ হবে কিনা ? “

    shane2k

    Brother Momin,

    I agree with you. What I have read from the commentary of Omar (R) on this very topic was that when he saw that people were misusing the steps of 3 divorce and giving 3 divorce at once he regretfully said that if people knowingly wants to bring suffering on themselves then let it be. Meaning, if someone give 3 divorce at once then let it counted as 3 instead of 1.

    BUT, in reference to Prophetic tradition steps must be followed and giving 3 at once is a SIN, yes SIN, based on Prophets hadith.

    My detail on this topic is in the link below
    http://www.peaceinislam.com/shane2k/%E0%A6%8F%E0%A6%95-%E0%A6%A4%E0%A6%BE%E0%A6%B2%E0%A6%BE%E0%A6%95-%E0%A6%A6%E0%A7%81%E0%A6%87-%E0%A6%A4%E0%A6%BE%E0%A6%B2%E0%A6%BE%E0%A6%95-%E0%A6%A4%E0%A6%BF%E0%A6%A8-%E0%A6%A4%E0%A6%BE%E0%A6%B2/

    মর্দে মুমিন

    ভাই shane2k সালাম। আমি আপনার আর্টিকেল পড়েছি। আমি বলতে দ্বিধা নেই, ইংরেজী থেকে বাংলাতে মনের ভাব প্রকাশ করতে সহজ বোধ করি। তাই আপনিও যদি মাতৃ ভাষা আল্লাহর সেরা দান মনে করেন তবে প্লিজ! বাংলায় লিখতে চেষ্টা করবেন। অভ্র মাউস ডেক্সট কি বোর্ডের লিংক দিলাম তা থেকে সহজে Click ‘Type করে দেখুন। ইনশা আল্লাহ আপনিও পারবেন আমাদের মতো বাংলায় টাইপ করতে। ধন্যবাদ

    shane2k

    Brother Mumin,

    Were you refering to my Article or the Comment ?

    If Article, then my articles are in Bangla but some portions are English for reasons when I thought that if I translate might lose the actual essence of the sentence or paragraph.

    If comment, then I am guilty as charged and this is more for the reason that for the purpose of comment it will take signaficant time for me to pass my view if I am to write in Bangla rather than English.

    But I promise that Inshallah my effort to post my artciles are always in Bangla.

  3. আল্লাহ রব্বুল আলামিন কোরআন শরীফে উল্লেখ করেছেন:
    অত:পর সে যদি স্ত্রীকে (তিন) তালাক দেয় তবে সে স্ত্রি যে পর্যন্ত তাকে ছাড়া অপর কোনো স্বামীর সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ না হয় তার জন্য হালাল নয়। অর্থ্যাৎ, দ্বিতীয় স্বামী বিবাহ করে তালাক না দেয়া পর্যন্ত প্রথম স্বামী গ্রহন করতে পারবে না । ” ( সুরা বাকারা ২৩০ )

    আপনি “অত:পর সে যদি এর কোন ব্যাখ্যায় না বলে সোজা চলে আসলেন ২৩০ নং আয়াতে তার মানে “অত:পর সে যদি এর শর্ত সমূহ জানেন না বা বলতে চান না। সুরা বাকারার ২২৭ থেকে ২২৯ আয়াতে আল্লাহ যে প্রক্রিয়ার মাধ্যমে তালাক প্রয়োগ করতে বলেছেন তা পড়ুন, তা বিবেচনা করুন “অত:পর সে যদি কে প্রয়োগ করতে বলা হয়েছে।

    ঐ আয়াতের মানে এইটা নয়, আপনার বৌ তরকারির মধ্যে লবণ কম দিয়েছে আর তার কারণে আল্লাহ আপনাকে লাইসেন্স দিয়েছেন বৌ তালাক দিবার। যেহেতু আপনি ২২৭ থেকে ২২৯ এর ধারাবাহিকতা রক্ষা না করে আল্লাহর হুকুমের নাফরমানী করে সম্পূর্ণ অবৈধ ভাবে তিন তালাক প্রয়োগ করেছেন বিধায় ঐ তিন তালাক বিদাত। আর বিদাত তালাক বৈধ হতে পারেনা।

    ইসলামে কিসাসের নিয়ম আছে। আপনি যদি আমাকে কতল করেন তখন রাষ্ট্র আপনাকে ঐ অপরাধে শাস্তি দিবে কতল করার। এই খানে আপনি সামান্য লবণের কারণে বৌকে তালাক দিয়ে (যদি বৈধ ধরে নেওয়া হয়) দিলেন। তার মানে আপনি আপনার বৌকে কতল করে ফেলেছেন তাই তার অপরাধে আপনার শাস্তি হওয়া উচিত। অথচ তা না করে একজন নিরপরাধ নারীকে যুগের পর যুগে শাস্তি দিয়ে যাচ্ছি ঐ ২৩০ আয়াতের জোরে। আগের মানুষ বেশীর ভাগ অজ্ঞ ছিল তাই হুজুরা যা বলছেন তাই মেনে নিয়েছে। কিন্তু যুগ বদলেছে জ্ঞান এখন ঘরে ঘরে এসে গেছে তাই ৫০০ শত বছর আগে যা হয়েছে এখন এত সহজে তা হবার নয়। ধন্যবাদ

    হাফিজ

    কি শুরু করলেন আপনারা , আপনাদের এই পোস্ট পড়তে পড়তে কোন সময় না ভুলে নিজেরটারে তালাক দিয়া দিই :)

    মর্দে মুমিন

    কি শুরু করেছি আবার? কোরানের খণ্ডিত ব্যাখ্যায় মানুষ বিভ্রান্ত হয়। আমরা বিধর্মীর কাছে হাস্যকর হয়ে দাঁড়াই। এর জন্য এই কথা বলা কোন ঝগড়া করার জন্য নয়। ধন্যবাদ।

  4. @ Malcolm X ভাই আমি তো ইসলামিক ফিকাহবিদ নই। একজন আম জনতা। আপনি নিচের লাইন গুলো পড়েন তারপর নিজের বিবেক অনুযায়ী সিদ্ধান্ত নিবেন।

    Question: Dear scholar, As-Salamu `alaykum. I am very stressed now, please help me and guide me. I will tell you my problem shortly. My husband gave me divorce 8 months before; he gave me 3 divorces at a time. When he gave me divorce, he was arguing about some family problem and he gave me 3 talaqs with these words: first he gave me 3 divorces with (saying talaq) then he said to me listen carefully then he again gave me 3 divorces then he said listen again because after that don’t say to me that you didn’t listen then he again gave me 3 divorces (this was talaqun bain [irrevocable divorce]). When he gave me divorce, I wasn’t mensturating, we have 2 young kids, my elder son is 2 years old and my daughter is 1 year old, and we had a good husband wife relation. Now my ex-husband really regrets and wants to do halala. My question is, if for halala purpose somebody agrees to marry me, just to help me and my ex-husband (to make halala between me and my ex-husband) somebody agrees to marry me, without taking any money or anything, and after making husband wife relation, then he divorce me then can I marry to my first husband? Is it permissible? Can we do it? Please reply me! I will wait for your fatwa reply desperately, thank you!

    Answer: Wa `alaykum As-Salamu wa Rahmatullahi wa Barakatuh.

    সূত্র এখান থেকে পাওয়া

    In the Name of Allah, Most Gracious, Most Merciful.

    All praise and thanks are due to Allah, and peace and blessings be upon His Messenger.

    If all of these pronouncements of divorce did take place in one sitting, and not on three separate occasions, then you are only divorced once, in this case your husband is allowed to take you back. He can simply say in front of two witnesses, I take back my wife so and so or write it down and get it witnessed to be more precise.

    If, on the other hand, he divorced you on three separate occasions, then your husband cannot take you back.

    But that is not what I understand from your question; your question implies that all of the pronouncements of divorce happened in one session or in the same sitting. So there is no need for you to marry someone else and then get a divorce from the person to marry your husband.

    The issue of someone marrying you simply for sake of divorce is not permissible in Islam. That is nothing but corruption.

    Your husband needs to learn to control his anger; he must never play with the words of talaq again. That is making a mockery of the laws of Allah, which is indeed a most heinous sin. If you have marital issues you need to go for counselling to learn how to sort them out.

    Allah Almighty knows best.

    এই ফতোয়া দিয়েছেন- ফিকাহ বিদ আহমেদ কুট্টি। উনার সম্পর্কে জানতে হলে এই লিংকে যান

    আল্লাহ আমাদেরকে সত্য বুঝতে সাহায্য করুন। আমিন।

  5. For some reason Chrome pastes a different link than IE.

    Here is my own article on Divorce http://www.peaceinislam.com/shane2k/179/