লগইন রেজিস্ট্রেশন

অগাষ্ট, ২০১১ -এর আর্কাইভ

 

সিয়ামের সুন্নত আদব সমূহ….পর্ব ০১

লিখেছেন: ' shahedups' @ রবিবার, অগাষ্ট ৭, ২০১১ (১:৪৫ অপরাহ্ণ)

সিয়াম পালনের কিছু মুস্তাহাব বা সুন্নাত আদব আছে যেগুলো পালন করলে সাওয়াব বেড়ে যাবে। আর তা ছেড়ে দিলে রোযা ভঙ্গ হবে না বা গোনাহও হবে না। তবে পুণ্যে ঘাটতি হবে। কিন্তু তা আদায় করলে সওয়াবের পরিপূর্ণতা আসে। নিম্নে এসব আদব উল্লেখ করা হল :
[১] সাহরী খাওয়া।
রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন,
(ক) তোমরা সাহরী খাও, কারণ সাহরীতে বরকত রয়েছে। (বুখারী-১৯২৩ ও মুসলিম-১০৯৫
(খ) আমাদের (মুসলিমদের) ও ইয়াহূদী-নাসারাদের সিয়ামের মধ্যে পার্থক্য হল সাহরী খাওয়া। (মুসলিম-১০৯৬)
অর্থাৎ আমরা সিয়াম পালন করি .....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

ইসলামে নারীর অধিকার

লিখেছেন: ' sayedalihasan' @ রবিবার, অগাষ্ট ৭, ২০১১ (১১:৫১ পূর্বাহ্ণ)

নারী অধিকার বিষয়টি বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বেশ আলোচিত বিষয়। নারী তার অধিকার এবং অবস্থানের ক্ষেত্রে ছিল অনেক পিছিয়ে। বর্তমান সময়ে বহু সমাজে নারীরা বহু রকম সমস্যার শিকার এমনকি নির্যাতনের শিকার। সে জন্যে আমরা একটি পরিবারে নারীর মৌলিক অধিকার সম্পর্কে ইসলাম কী দৃষ্টিভঙ্গি পোষণ করে সে বিষয়ে খানিকটা আলোকপাত করার চেষ্টা করবো।

বিয়ে এবং পরিবার গঠন মানব সভ্যতার একটি জরুরী প্রয়োজন। পরিবারের ছত্রচ্ছায়ায় নারী-পুরুষ এবং সন্তানেরা উন্নয়ন ও পূর্ণতায় পৌঁছে। আসলে পরিবার হচ্ছে মানব উন্নয়নের সবচেয়ে উপযোগী ক্ষেত্র। কেননা সমাজকে একটা জীবন্ত .....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

কওমি মাদ্রাসা সম্পর্কে কালের কণ্ঠের মিথ্যাচারের প্রতিবাদ

লিখেছেন: ' habib008' @ বৃহস্পতিবার, অগাষ্ট ৪, ২০১১ (১০:০০ অপরাহ্ণ)

২রা আগস্ট ২০১১ দৈনিক কালের কণ্ঠে প্রকাশিত একটি রিপোর্টে কওমি মাদ্রাসা গুলোকে জঙ্গি কারখানা বলে যে রিপোর্ট ছাপা হয়েছে তা ডাহা মিথ্যা উদ্দেশ্য প্রণোদিত এবং ইসলাম বিদ্বেষ প্রসূত। যুগ যুগ ধরে কওমি মাদ্রাসা গুলো এদেশের মুসলমানদের সন্তানদেরকে দীনি শিক্ষা দিয়ে আসছে। কোনোও দিন মারা-মারি হানা-হানির কারণে মাদ্রাসা বন্ধ হয়েছে এমন নজির নাই। অথচ কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় গুলোতে ধর্ষণের সেঞ্চুরি করা সহ মারা মারি প্রায় লেগেই থাকে। মারা-মারির কারণে প্রায় শুনা যায় কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় গুলো বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। অথচ কালের কণ্ঠ .....

১৩ টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

রমজানের নির্বাচিত ফতোয়া……….পর্ব ০১

লিখেছেন: ' shahedups' @ বৃহস্পতিবার, অগাষ্ট ৪, ২০১১ (৩:৩৩ অপরাহ্ণ)

প্রশ্ন: যে ব্যক্তি রমজান মাসে শরয়ী কোন ওযর ব্যতীত ইচ্ছাকৃত রোজা ভেঙ্গে ফেলে তাহলে তার কাফ্‌ফারা কী?

উত্তর: যদি কোন ব্যক্তি ইচ্ছাকৃত সহবাসের মাধ্যমে রোজা ভেঙ্গে ফেলে তাহলে তার উপর তওবাহ সহ কাযা ও কাফ্‌ফারা আবশ্যক।

আর কাফ্‌ফারা হচ্ছে:

১. কোন মুমিন গোলাম আজাদ করা।

২. যদি তা করতে না পারে তাহলে দুই মাস লাগাতার রোজা রাখা।

৩. আর যদি তা করতে না পারে তাহলে ষাটজন গরিব-মিসকিনকে খাদ্য দেয়া।

স্ত্রীর উপরও অনুরূপ আবশ্যক যদি তাকে বাধ্য করে জোরপূর্বক সহবাস করা না হয়।

.....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

মিস্টার মওদুদীর বিস্তারিত বিবরন ——–

লিখেছেন: ' আবদুস সবুর' @ বৃহস্পতিবার, অগাষ্ট ৪, ২০১১ (১২:৫৭ অপরাহ্ণ)

(কৈফিয়ত: আমি জামায়াতে ইসলামী ও শিবিরের ভাইদের কোনরুপ হেয় বা খাটো করার উদ্দেশে মাওলানা মওদুদীর উক্তিগুলো এখানে তুলে ধরিনি। আমি জানি, তারা এগুলো সম্পর্কে কমই জানেন অথবা তাদের জানতে দেওয়া হয়না। কেউ যদি জেনেও ফেলেন এবং বড়দের নিকট প্রকাশ করেন, তাদের এমন বোঝান হয় যে এগুলো সব শত্রুদের ষড়যন্ত্র। আবার এমনটিও বলা হয়- আমরা তো আর মাওলানা মওদুদীকে অনুসরন করিনা বা তার সব কথা মানিও না। কিন্তু একথা গ্রহনযোগ্য নয়, কারন জামায়াতে ইসলামী ও ছাত্রশিবিরের পাঠ্যসূচিতে মাওলানা মওদুদী লিখিত প্রায় .....

৩৮ টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

রোযা সম্পর্কে বহুল প্রচলিত কিছু যয়ীফ ও জাল হাদীস

লিখেছেন: ' shovoon' @ মঙ্গলবার, অগাষ্ট ২, ২০১১ (৮:১১ অপরাহ্ণ)

রোজাকে কেন্দ্র করে আমাদের সমাজে বহু যয়ীফ ও জাল হাদীস লোক মুখে ও বহু বই পুস্তকে প্রচলিত আছে এবং সেগুলি বাজারে খুবই প্রচলিত এবং জনপ্রিয় । তারই টুকিটাকি কিছু নিম্নে বর্নিত হল যাতে সাধারণ মানুষ বিভ্রান্তিতে না পড়েন ।

১.সালমান ফারসী (রা) নাম দিয়ে একটি লম্বা হাদীস আছে যে, ‘যে ব্যক্তি রমযান মাসে একটি নফল ইবাদত করবে, সে অন্য মাসে একটি ফরয আদায়ের সমান সওয়াব লাভ করবে এবং যে কেউ তাতে একটি ফরয আদায় করবে তার অন্য মাসে সত্তরটি সওয়াব আদায়ের .....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

হাটহাজারীর মাদ্রাসা যেন মিনি ক্যান্টনমেন্ট ,অনেক কওমি মাদ্রাসা জঙ্গি তৈরির কারখানা

লিখেছেন: ' এম এম নুর হোসেন' @ মঙ্গলবার, অগাষ্ট ২, ২০১১ (১১:০৮ পূর্বাহ্ণ)

জঙ্গি তৎপরতা-২

পারভেজ খান

সরকারের নীতিমালা আর নজরদারির অভাবে দেশের আনাচে-কানাচে গড়ে ওঠা কওমি মাদ্রাসার অনেকটিই পরিণত হয়েছে জঙ্গি তৈরির কারখানায়। এসব কারখানায় রয়েছে আধুনিক প্রশিক্ষণকেন্দ্র। আছেন আফগানিস্তান, পাকিস্তান ও আরাকানে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত প্রশিক্ষকও।
জানা গেছে, দেশে রয়েছে ২০ হাজারের মতো কওমি মাদ্রাসা। অধিকাংশ মাদ্রাসাই পার্বত্য ও জঙ্গল এলাকায়। এসব মাদ্রাসায় কারা ছাত্র, তারা কী শিখছে, কারা শেখাচ্ছেন_এর কিছুই জানা নেই সরকারের। দেশে একটি শিক্ষানীতি থাকলেও কওমি মাদ্রাসাগুলো এর ধার ধারছে না। গোয়েন্দাদের মতে, এ বিষয়ে সরকারের উদাসীনতা দেশে একসময় ভয়াবহ .....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

বান্দাদের পূণ্য আর গোনাহমুক্তির ক্ষেত্রে বোনাসময় মাস মাহে রামাযান

লিখেছেন: ' লুৎফর ফরাজী' @ মঙ্গলবার, অগাষ্ট ২, ২০১১ (১:১৯ পূর্বাহ্ণ)

রামাযান মানে কি?‎

রমাযান আরবী শব্দ। আরবী মাস সমূহের মাঝে একটি মাসের নাম। যার আভিধানিক অর্থ ঝলসিয়ে দেয়া, ‎জ্বালিয়ে দেয়া। রামাযানকে রামাযান এজন্য বলা হয়-(ক) সর্ব প্রথম যখন রামাযানে রোযা ফরয হয় তখন ‎প্রচন্ড গরম ছিল তাই এ মাসকে রামাযান বলা হয়। (খ) রামাযান মাসে আল্লাহ তায়ালা তার অবারিত ‎রহমত ও বরকত দিয়ে বান্দার পূর্ব মাসের গোনাহকে পুড়িয়ে ছাই করে দেন, এ হিসেবেও একে রামাযান ‎বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

রোযা কাকে বলে?‎

আরবীতে যে শব্দকে সিয়াম বলে বলে তাকেই আমরা বাংলা উর্দু ও .....

১১ টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

নিজ দেশের লোকদের সাথে রোজা রাখবেন না চাঁদ দেখা যে কোনো দেশের সাথে?

লিখেছেন: ' shahedups' @ সোমবার, অগাষ্ট ১, ২০১১ (৩:০৪ অপরাহ্ণ)

প্রশ্ন: যদি ইসলমি রাষ্ট্রে চাঁদ দেখা যায়, আর আমি যে দেশে বসবাস করি, সেখানে শাবান ও রমজান মাস ত্রিশ দিনে পুরো করা হয়, তাহলে আমি কি করব? রমজান প্রসঙ্গে মানুষের মতপার্থক্যের কারন কি?
জবাব:
আল-হামদুলিল্লাহ
আপনার জন্য রোজা আপনার দেশের লোকদের সাথে থাকাই আবশ্যক। তারা যদি রোজা রাখে তাদের সাথে রোজা রাখবেন; আর তারা যদি ইফতার করে আপনি ও তাদের সাথে ইফতার করবেন। করাণ, রাসূল (সা:) বলেছেন: “তোমরা যেদিন রোজা রাখবে সেদিনই রোজা, যেদিন ইফতার করবে সেদিনই ইফতার, আর তোমরা .....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>

রোজার খাদ্যাভ্যাসঃ অতি গুরুত্বপূর্ণ কিছু কথা

লিখেছেন: ' shovoon' @ সোমবার, অগাষ্ট ১, ২০১১ (২:০০ অপরাহ্ণ)

স্বাস্থের উপর রোজার হিতকর প্রভাব
স্বাস্থ্য ও স্বাস্থ্যবিধি দুটো দিক বিবেচনায়ই রোজার রয়েছে হিতকর প্রভাব। মন ও শরীর দুটোর কল্যাণের জন্যই রোজা অবশ্যকরণীয়। স্বাস্থ্যবিজ্ঞানীরাও এ কথা এখন স্বীকার করছেন।সংযম পালন মানুষের ইচ্ছাশক্তিকে দৃঢ় করে, রুচিকে পরিশীলিত করে, ভালো কাজ করার জন্য প্রণোদনা দেয়, সুস্থ মানস ও ব্যক্তিত্ব গঠনে সাহায্য করে। কষ্ট সহ্য করার শক্তি, ধৈর্যশক্তি ও সংযম-এ গুণাবলি মানুষ অর্জন করে উপবাসচর্চায়।

দৈহিক-মানসিক নানা রোগ প্রতিরোধে ও চিকিৎসায় রোজার ভূমিকা এখন স্বাস্থ্যবিজ্ঞানীরা স্বীকার করছেন। পাচকনালির রোগ, কোলাইটিস, যকৃতের রোগ, বদহজম, মেদস্থূলতা, .....

টি মন্তব্য  |  বিস্তারিত >>